দাগনভূঞা প্রতিনিধি->>
ফেনীর দাগনভূঞা রাজাপুর ইউনিয়নের সমাসপুর আনোয়ারুল উলুম মাদ্রাসার এক ছাত্রকে বলৎকারের ঘটনায় বৃহস্পতিবার দুপুরে তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এর আগে ভুক্তভোগী ওই ছাত্রর মা বাদী হয়ে দাগনভূঞা থানায় মাদ্রাসার প্রিন্সিপালসহ ৪ শিক্ষককে আসামি করে মামলা দায়ের করে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ভুক্তভোগী ওই ছাত্র সমাসপুর আনোয়ারুল উলুম মাদ্রাসার হেফজ বিভাগে ছাত্র।সে মাদ্রাসার আবাসিকে থেকে পড়ালেখা করতো। গত ৩০ ডিসেম্বর বিকেলে হেফজ বিভাগের সহকারী শিক্ষক মোঃ কাউছার মাদ্রাসার সকল ছাত্ররা যখন আসরের নামাজ পড়ার জন্য মসজিদে চলে যায় তখন ওই ছাত্র কে মসজিদে যাওয়ার আগে শিক্ষক কাউছারের রুমে আসতে বলে। ছাত্রটি যখন তার কক্ষে আসে একপর্যায়ে তাকে মাদ্রাসার টয়লেটে ওই ছাত্রকে নিয়ে জোরপূর্বক বলাৎকার করে। পরবর্তীতে ছাত্র বিষয়টি তার পরিবারকে জানালে তার মাদ্রাসার প্রিন্সিপালকে অবহিত করে। কিন্তু তারা কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় বৃহস্পতিবার সকালে দাগনভূঞা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ভুক্তভোগী ছাত্রের মা মামলা দায়ের করেন।
এ ঘটনায় মামলার প্রধান আসামি মোঃ কাউছার ছাড়া অপর তিন আসামিকে বৃহস্পতিবার দুপুরে মাদ্রাসা থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।আসামিরা মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল আব্দুস সাত্তার (৪০),সহকারী শিক্ষক জাকিরুল ইসলাম (৩৯),কিতাব বিভাগের শিক্ষক আফতাব উদ্দিন (৪০)।

দাগনভূঞা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) পার্থপ্রতিম দেব জানান, গ্রেপ্তারকৃত তিন আসামী মামলার প্রধান আসামী কে পালাতে সহযোগিতা করায় ভুক্তভোগী ছাত্রের মা তাদেরকে  মামলায় আসামি করে। ওই দিন বিকেলে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

Sharing is caring!