স্পোর্টস ডেস্ক->>

দারুণ ফ্রি কিকে পথ দেখালেন লিওনেল মেসি। কিন্তু সুযোগ নষ্টের ভিড়ে অধিনায়কের গড়ে দেওয়া ভিত কাজে লাগাতে পারল না আর্জেন্টিনা। উল্টো বিরতির পর হারাল ছন্দ, সেই সুযোগে মূল্যবান একটি পয়েন্ট তুলে নিল চিলি।

রিও দে জেনেইরোর নিল্তন সান্তোসে বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার ভোরে কোপা আমেরিকায় ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছে। পিছিয়ে পড়ার পর সমতা টানেন এদুয়ার্দো ভার্গাস।

আক্রমণাত্মক কৌশলে ম্যাচের প্রায় পুরোটা সময়ই আধিপত্য দেখায় আর্জেন্টিনা। তারা যা একটু ছন্দ হারায় দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর ভাগে, আর ওখানেই মহামূল্যবান গোলটা আদায় করে নেয় চিলি।

বল দখলে সামান্য পিছিয়ে থাকা আর্জেন্টিনা গোলের উদ্দেশে মোট ১৮টি শট নেয়, যার পাঁচটি ছিল লক্ষ্যে। বিপরীতে, চিলির মোট পাঁচ শটের চারটিই লক্ষ্যে।

প্রথমার্ধ জুড়ে ঘর সামলাতে ব্যস্ত চিলি গোল হজম করতে পারতো ম্যাচের অষ্টম মিনিটেই। তবে সতীর্থের হেডে বাড়ানো বল পেয়ে যে শটটি নেন মেসি, তা দূরের পোস্টের অনেক দূর দিয়ে যায়। চার মিনিট পর জিওভানি লো সেলসোর দারুণ ক্রসে লাউতারো মার্তিনেসের দুর্বল শটও হয় লক্ষ্যভ্রষ্ট।

চাপ ধরে রেখে ষোড়শ মিনিটে প্রথম প্রতিপক্ষ গোলরক্ষকের পরীক্ষা নেয় আর্জেন্টিনা। নিকোলাস গনসালেসের শট ডান দিকে ঝাঁপিয়ে ফেরান ক্লাওদিও ব্রাভো। পরের দুই মিনিটে আরও দুবার সুযোগ পান স্টুটগার্টের এই ফরোয়ার্ড; কিন্তু খুঁজে পাননি ঠিকানা।

অবশেষে ৩৩তম মিনিটে দারুণ ফ্রি কিকে দলকে এগিয়ে নেন মেসি। বল রক্ষণপ্রাচীরের ওপর দিয়ে সামান্য বাঁক খেয়ে ঠিকানা খুঁজে নেয়। ঝাঁপিয়ে বলে হাত লাগালেও রুখতে পারেননি ব্রাভো।

প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে এটি মেসির ৩৯তম গোল। সব মিলিয়ে জাতীয় দলের হয়ে ১৪৫ ম্যাচে ৭৩ গোল হলো আর্জেন্টিনার রেকর্ড গোলদাতার।

প্রথমার্ধে লক্ষ্যে একটি শটও নিতে না পারা চিলি ৫৭তম মিনিটে সমতায় ফেরে। আর্তুরো ভিদালকে ডি-বক্সে নিকোলাস তাগলিয়াফিকো ফাউল করলে ভিএআরের সাহায্যে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। ইন্টার মিলানের এই মিডফিল্ডারের নেওয়া স্পট কিক ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক এমিলিয়ানো মার্তিনেস। তবে বল ক্রসবারে লেগে ফেরার পর হেডে জালে পাঠান ভার্গাস।

৭১তম মিনিটে আবারও এগিয়ে যেতে পারতো আর্জেন্টিনা। তবে মেসির দূর থেকে নেওয়া শট ঝাঁপিয়ে ফেরান ব্রাভো। আট মিনিট পর অধিনায়কের দারুণ ক্রস ছয় গজ বক্সের বাইরে পেয়ে লক্ষ্যভ্রষ্ট হেড করেন গনসালেস।

বাকি সময়েও একচেটিয়া চাপ ধরে রাখে দুবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। কিন্তু ব্যর্থতার জাল আর ছিঁড়তে পারেনি তারা।

শিষ্যদের সুযোগ নষ্টের মিছিল দেখে আর্জেন্টিনা কোচ লিওনেল স্কালোনির পুরনো ভাবনা নতুন করে জাগতে পারে আবারও। এ মাসের শুরুতে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে এই চিলির বিপক্ষে প্রায় একইরকম অভিজ্ঞতা হয়েছিল তাদের। মেসির পেনাল্টি গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর ১-১ এ ড্র করেছিল। ওই ম্যাচে সুযোগ নষ্ট হয়েছিল অগণিত।

মহাদেশ সেরা টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৪ বারের চ্যাম্পিয়নদের জন্য দুর্ভাবনার জায়গা আছে আরও; এই নিয়ে টানা তিন ম্যাচে এগিয়ে যাওয়ার পর ছন্দ হারিয়ে জয় হাতছাড়া করল তারা। তাই দ্রুত এ সমস্যার সমাধান না মিললে আসরে সামনের পথচলায় পস্তাতে হতে পারে।

এখানে জয় না মিললেও কোপা আমেরিকায় চিলির বিপক্ষে আর্জেন্টিনার অপরাজেয় পথচলা অবশ্য আরও লম্বা হলো। এই নিয়ে ২৯ বারের দেখায় ২০ বার জিতেছে তারা। বাকি ৯ ম্যাচ ড্র; তবে এর মধ্যেই আছে ২০১৫ ও ২০১৬ আসরের ফাইনাল। যে দুবার টাইব্রেকারে জিতে শিরোপা উল্লাস করেছিল চিলি।

নিজেদের পরের ম্যাচে বাংলাদেশ সময় আগামী শনিবার ভোরে উরুগুয়ের বিপক্ষে খেলবে আর্জেন্টিনা। সেদিনই বলিভিয়ার মুখোমুখি হবে চিলি।

সূত্র:বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

Sharing is caring!