সোনাগাজী প্রতিনিধি->>

সোনাগাজীতে সড়কে গাড়ি আটকিয়ে চাঁদাবাজি ও হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে গ্রামবাসী। বুধবার বিকেলে আমিরাবাদ ইউনিয়নের সফরপুর গ্রামের শাহাজাহান সড়কে সাবেক ইউপি সদস্য ছাদেক হোসেন ও তার তিন ছেলের শাস্তি দাবি করে গ্রামবাসী এই কর্মসূচী পালন করেন।

এলাকাবাসীর উদ্যোগে আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন আমিরাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান জহিরুল আলম জহির, ইউপি সদস্য আবদু্র রাজ্জাক, যুবলীগ নেতা আজগর হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা সাইফ উদ্দিন আকাশ, ব্যবসায়ী মহি উদ্দিন, আবুল বাশার, মোল্লাবাড়ি জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সদস্য নূর ইসলাম, এমদাদুল হক জিহাদ, মো. দুলাল হোসেন ও আলা উদ্দিন প্রমূখ।

মানববন্ধন এলাকাবাসী অভিযোগ করেন, সাবেক ইউপি সদস্য ছাদেক হোসেন, তার ছেলে ছালাহ উদ্দিন রুবেল, মো. রাকিব ও মো. সোহেল মিলে শহাজাহান সড়কে গাড়ি আটকে দীর্ঘ দিন যাবৎ গ্রামবাসীর কাছ থেকে চাঁদা আদায় করে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার বিকালে ছাত্তার পোল্ট্রির কর্মচারী আবু তৈয়ব ও গাড়ি চালক ইউনুস ভূঞা জনির গাড়ি আটকে ছাদেক হোসন ও তার তিন ছেলে পাঁচ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। তারা দাবিকৃত চাঁদা না পেয়ে তৈয়ব ও জনিকে পিটিয়ে আহত করেন। এসময় তৈয়বের পকেটে থাকা ৮০হাজার টাকা লুটে নেয় তারা। এ ঘটনায় আবু তৈয়বের পিতা আবুল বাশার বাদী হয়ে ছাদেক হোসেন ও তার তিন ছেলের বিরুদ্ধে সোনাগাজী মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দেয়।

এলাকাবাসী আরো অভিযোগ করেন, সাহেবের হাট-ছাদেক মেম্বার বাড়ি পর্যন্ত ৭০০মিটার দৈর্ঘ্য শাহাজাহান সড়কটি ছাদেক হোসেনের বাড়ির পাশ দিয়ে বহমান। স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতায় নিবন্ধিত এই সড়কটি পাকা করণের জন্য অপেক্ষমান রয়েছে। তিনি ও তার ছেলেরা মিলে প্রতিনিয়ত গাড়ি চলাচলে বাধা দিয়ে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি করে আসছে। দাবিকৃত চাঁদা না পেলে তারা গাড়ি ভাঙচুর ও চালকদের উপর হামলা করেন। এর আগে বিয়ের গায়ে হলুদের গাড়ি ভাঙচুর, পোল্ট্রি খামারিদের কাছ থেকে চাঁদা আদায়, মসজিদের নির্মাণ সামগ্রি বহনে বাধা সহ নানাভাবে হয়রানি করে আসছে তারা। এ নিয়ে গ্রামবাসীর মাঝে দীর্ঘ দিন যাবৎ চরম ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে।

মানববন্ধনে সফরপুর গ্রামের শতাধিক গ্রামবাসী উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!