সদর প্রতিনিধি->>

ফেনী সদর উপজেলার বালিগাঁও ইউনিয়ন ফুটবল দল জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলেতুন্নেছা অনুর্ধ্ব-১৭ ফুটবল টুর্ণামেন্টে অংশ না নেওয়ায় চেয়ারম্যানকে শোকজ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাসরীন সুলতানা বালিগাঁও ইউনিয়ণ পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক বাহারকে শোকজ করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে ও উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় উপজেলা পর্যায়ে ফেনী সদর উপজেলার ১২ ইউনিয়নের মধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলেতুন্নেছা অনুর্ধ্ব-১৭ ফুটবল টুর্ণামেন্টের আয়োজন করা হয়। সদ্য সমাপ্ত হওয়া টুর্ণামেন্টে গত ২৯ মে অনুষ্ঠিত প্রথম রাউন্ডের খেলায়
সদর উপজেলার ১২ ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে ১১টি েইউনিয়ন দল অংশগ্রহণ করলেও বালিগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ দল অংশগ্রহণ করেনি।

টুর্ণামেন্টে আয়োজক সূত্র জানায়, গত ২৯ মে পাঁচগাছিয়া এ জেড খান উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ মাঠে বালিগাঁও ইউনিয়নের বিপরীতে পাঁচগাছিয়া ইউনিয়নের নির্ধারিত খেলা ছিল। কিন্তু খেলার আগ মুহুর্তে বালিগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক বাহার তাঁর মুঠোফোনটি বন্ধ করে রাখে এবং তাঁর টিম অংশ না নেওয়ায় স্বাগতিক পাঁচগাছিয়া ইউনিয়ন দলকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট অনেকে ইউপি চেয়ারম্যান বাহারকে দোষারোপ করে বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলেতুন্নেছা অনুর্ধ্ব-১৭ ফুটবল টুর্ণামেন্টে অংশ নিতে ইউনিয়ন টিম গঠনে চেয়ারম্যান ইচ্ছাকৃতভাবে অনীহা করায় বালিগাঁও ইউনিয়ন থেকে কোনো দল খেলায় অংশ নেয়নি। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ সর্বত্র ব্যাপক সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

ফেনী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাসরীন সুলতানা মুঠোফোনে জানান, বালিগাঁও ইউনিয়ন দল খেলায় অংশ না নেওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক বাহারকে শোকজ করা হয়। চেয়ারম্যান বাহার খেলার বিষয়টি ভুলে গিয়েছেন মর্মে ক্ষমা চেয়েছেন।

প্রসঙ্গত, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অনুর্ধ্ব-১৭ ফুটবল টুর্ণামেন্টে সদর উপজেলায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে শর্শদি ইউনিয়ন দল।

Sharing is caring!