নিজস্ব প্রতিবেদক->>

ফেনীতে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে দুই নারীসহ আরো ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার সিভিল সার্জন ডা. রফিক উস-সালেহীন জানান, নতুন তিনজনসহ জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৫৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানান, রাতে রাজধানীর গুলশানে জয়নুল হক সিকদার ওমেন্স মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সদর উপজেলার কাজিরবাগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ইকবাল হোসেন মজুমদারের (৫২) মৃত্যু হয়েছে। এর আগে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাীন অবস্থায় সদর উপজেলার মোটবী ইউনিয়নের সাহাপুর গ্রামের বাসিন্দা নুরজাহান (৬০) ও ছাগলনাইয়া উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের বাসিন্দা আমেনা বেগম (৬৫) নামে দুই নারীর মৃত্যু হয়েছে।

ইকবাল হোসেন মজুমদারের বড় ছেলে হাসান আবদুল্লাহ সাকিব জানান, বাবা ইকবাল হোসেন মজুমদার অসুস্থ্য হলে গত ২৪ এপ্রিল ফেনী জেনারেল হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন। পরদিন শ্বাসকষ্ট অনুভব হলে বেসরকারী মেডিনোভা হাসপাতালে ভর্তি হন। ওইদিনই দুপুরে নোয়াখালীর আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরীক্ষাগার থেকে প্রেরিত প্রতিবেদনে তার শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। একপর্যায়ে তা শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে মঙ্গলবার তাকে রাজধানীর গুলশানে জয়নুল হক সিকদার ওমেন্স মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এদিকে ছেলের করোনা আক্রান্তের খবর জেনে ওইদিন ২৫ এপ্রিল রাতে আকস্মিকভাবে মারা যান মা ফজিলাতুননেসা (৭০)।

এদিকে করোনার উপসর্গ নিয়ে গত ২৩ এপ্রিল ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন সদর উপজেলার মোটবী ইউনিয়নের সাহাপুর গ্রামের বাসিন্দা নুরজাহান (৬০)। পরে নমুনা পরীক্ষা করা হলে পরদিন নোয়াখালীর আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরীক্ষাগার থেকে প্রেরিত প্রতিবেদনে তার শরীরে করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়। একইভাবে করোনার উপসর্গ নিয়ে গত ৪ মে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হন ছাগলনাইয়া উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের বাসিন্দা আমেনা বেগম (৬৫)। একইদিন নোয়াখালীর আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরীক্ষাগার থেকে প্রেরিত প্রতিবেদনে তার শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। মঙ্গলবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় ফেনী জেনারেল হাসপাতালে তাদের দু’জনেরই মৃত্যু হয়।

ফেনী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: ইকবাল হোসেন ভূঁইয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে আরো ২৮ জন রোগী ভর্তি রয়েছেন।

গত বছরের ১৬ এপ্রিল ছাগলনাইয়ায় প্রথম এক যুবকের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়।

Sharing is caring!