নিজস্ব প্রতিনিধি->>

ফেনীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে চলতি এপ্রিল মাসের প্রথম ১২ দিনে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ৬ জন ও ফেনী ডায়াবেটিক হাসপাতালে ২ জন মারা যায়।

হাসপাতাল সূত্র জানায়, ফেনী জেনারেল হাসপাতালে জ্বর-শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাীন অবস্থায় গত রোববার দুপুরে মারা যান নাজিম উদ্দিন (৮২)। জ্বর-শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে ওই দিন সকালে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সন্ধ্যায় জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। তিনি সোনাগাজী উপজেলার মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রামের বাসিন্দা।

ফেনী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. ইকবাল হোসেন ভূঞা জানান, গফেনী জেনারেল হাসপাতালে জ্বর-শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে গত ১ এপ্রিল থেকে ১০ এপ্রিল পর্যন্ত ৬ জন মারা গেছেন। তদের মধ্যে ১০ এপ্রিল নাজিম উদ্দিন (৮২), ৯ এপ্রিল হাজী সায়েদ আহম্মদ (৬৫), ৩ এপ্রিল হোসনে আরা বেগম (৬৫), ২ এপ্রিল আকবর হোসেন ((৭০), ১ এপ্রিল হারুন মোহন দাস (৮৫) ও নুরুল হুদা (৮৬) মারা যায়।

ফেনী ডায়াবেটিক হাসপাতালের পরিচালক মো. ইউনুছ জানান, ফেনী ডায়াবেটিক হাসপাতালে জ্বর-শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে গত ৯ এপ্রিল ফনি ভূষন মজুমদার (৭৭) ও সিরাজুল হক (৭২) নামে দুইজন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

এছাড়া সম্প্রতি ফেনীতে আবদুল আজিজ নামে এক বৃদ্ধ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যায়।

প্রসঙ্গত, ফেনীতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জেলার কর্মরত সিভিল সার্জন ডা. সাজ্জাদ হোসেনসহ ৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৪১ জন পুরুষ ও ৮ জন নারী রয়েছে। মৃতদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১৯ জন, সোনাগাজীতে ১১ জন, দাগনভূঞা উপজেলায় ৮ জন, ছাগলনাইয়ায় ৭ জন, পরশুরামে ৩ জন ও ফুলগাজীতে একজন রয়েছে। এছাড়া গেল এক বছরে করোনার উপসর্গ নিয়ে আরো দেড় শতাধিক রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে স্বাস্থ্য বিভিাগের বিভিন্ন সূত্রে নি্িচত হওয়া যায়।

Sharing is caring!