শহর প্রতিনিধি->>

ফেনীতে করোনা সংক্রমণের উর্ধ্বগতি থাকায় জেলা প্রশাসকের নির্দেশে বন্ধ হয়েছে শিল্প ও বাণিজ্য মেলা। শহরের ওয়াপদা মাঠে অনুষ্ঠিত মেলা বুধবার সকাল থেকে বিক্রেতারা দোকানের মালামাল গুটিয়ে চলে যায়। এর আগে জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজজামান সোমবার ২৪ ঘন্টার মধ্যে মেলা গুটিয়ে নেয়ার নির্দেশ দিলে মঙ্গলবার রাত ১০টায় মেলা বন্ধ করে দেয় আয়োজক এস আলম।

মেলার স্টল ফরেন জোনের সত্ত্বাধিকারী হারুনুর রশীদ জানান, মেলা আয়োজক কমিটি প্রতিটি দোকান থেকে ভাড়া বাবত ৯৫ হাজার টাকা করে নিয়েছেন। তিনি মুনাফার আশায় মেলার আয়োজক থেকে ১ লাখ ৯০ টাকায় দুটি দোকান নেন। স্বল্প সময়ে মেলা বন্ধ করে দেওয়ায় দোকান ভাড়াও তুলতে পারেননি। এখন লোকসান গুনতে হচ্ছে।

মেলা মাঠের বি আর কালার এর দোকানী মো. হাবিব জানান, প্রতিবছর মেলার সময় বর্ধিত করা হয়। এবারো তারা এমনটি আশা করেছিলেন। অথচ নির্ধারিত সময়ের চারদিন আগেই মেলা বন্ধ হওয়ায় তারা ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন। এ ক্ষতি কাটিয়ে উঠা সম্ভব নয়।

এদিকে মেলায় প্রবেশ টিকেট বিক্রীর সময় র‌্যাফেল ড্র বিজয়ীদের জন্য ৪টি মোটর সাইকেল, ১টি এলইডি টিভি, মাইক্রোওয়েব ওভেন, ১০টি মোবাইলসহ ৩১ টি আকর্ষনীয় পুরস্কার প্রদানের ব্যবস্থা রাখার ঘোষণা দিলেও মেলা বন্ধের সময় তা দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে এ ব্যাপারে আয়োজকরা কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

অপরদিকে মেলা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে আগামী সপ্তাহে খাগড়াছড়ি জেলায় তারা আরেকটি মেলার আয়োজন করতে পারেন। সেখানে তারা ফেনী বানিজ্য মেলার দোকানীদের স্টল রাখার সুযোগ করে দিবেন। তাতে করে ক্ষতিগ্রস্থ দোকানীরা তাদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবে।

ফেনীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. গোলাম জাকারিয়া জানান, সরকারের নির্দেশনা পর সোমবার রাতেই জেলা প্রশাসক মো: ওয়াহিদুজজামান মেলা বন্ধের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।

প্রসঙ্গত, ফেনীর ব্যবসায়ীদের আপত্তির মুখে করোনার মধ্যেই মেলার অনুমোদন দেয় প্রশাসন। এনিয়ে গত কিছুদিন জেলার ব্যবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে একাধিকবার মানববন্ধন করেছিলো।

Sharing is caring!