শহর প্রতিনিধি->>

ফেনী পৌরসভার ১০নং ওয়ার্ডে বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থী ফারুক উল্যাহ মজুমদার মুরাদের প্রচার মাইক ভাংচুর করেছে প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগ প্রার্থীর কর্মীরা। বুধবার বিকেলে শহরের শান্তি কোম্পানী রোডে প্রচার মাইক ভাংচুরের পাশাপাশি দুটি ব্যনার ছিড়ে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেছে প্রার্থী ফারুক উল্যাহ।

১০নং ওয়ার্ডে বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থী ফারুক উল্যাহ মজুমদার মুরাদ জানান, ডালিম প্রতীকের প্রার্থী হওয়ার পর তিনি তার ওয়ার্ডে প্রচারণা শুরু করেছেন। বুধবার তার প্রচারণা কার্যক্রম চলাকালে প্রচারে ব্যবহৃত একটি মাইক প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামী লীগর প্রার্থীর কর্মীরা ভাংচুর করে। এসময় প্রচার কাজে অংশগ্রহণকারীকে মারধর ও হুমকি ধমকি দেয়। একপর্যায়ে আওয়ামী লীগর প্রার্থীর কর্মীরা তার দুটি ব্যানার ছিড়ে নিয়ে যায়। যা আচারণ বিধির সুস্পষ্ট লংঘন।

তিনি আরো জানান, আচারণ বিধির সুষ্ট লংঘনের অভিযোগে তিনি জেলা রির্টানিং কর্মকর্তা ও ফেনী মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। লিখিত অভিযোগে এ ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইননানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করে নির্বাচনে সুষ্ঠ পরিবেশ বজায় রাখার অনুরোধ করেন।

ফেনী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলমগীর হোসেন জানান, এক প্রার্থীর মাইক ভাংচুরের লিখিত অভিযোগ পেয়েছে। পুলিশ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

প্রসঙ্গত, ফেনী পৌরসভা নির্বাচনে ১০নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী খালেদ খান উটপাখি প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

Sharing is caring!