দাগনভূঞা প্রতিনিধি->>

দাগনভূঞা তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রকে বলৎকারের ঘটনায় আবদুল করিম হৃদয় (২২) নামে এক বখাটে যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ অভিযুক্ত যুবককে মাতুভূঞা ইউনিয়নের মোমারিজপুর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। অভিযুক্ত আবদুল করিম হৃদয় উপজেলার মাতুভূঞা ইউপির মোমারিজপুর গ্রামের হাসান আলী মেস্ত্রী বাড়ির নুর নবীর ছেলে ও স্থানীয় একটি গরু খামারের কর্মচারী।

মামলার বিবরণ ও পুলিশ জানান, গতকাল বৃহস্পতিবার শিশুটি বাড়ির পাশে ক্রিকেট খেলতে যায়। খেলা শেষে বাড়িতে ফেরার পথে আসামি হৃদয় ১০ বছরের ওই শিশুকে বলৎকারের উদ্দেশ্যে দশ টাকার লোভ দেখিয়ে একই এলাকার আহসান মাস্টারের বাগানের ভেতর নিয়ে পাশবিক নির্যাতন চালায়। এ সময় শিশুটি চিৎকার দিলে আশপাশ লোকজন এগিয়ে আসলে বখাটে হৃদয় পালিয়ে যায়। বাড়িতে ফিরে পায়ুপথের ব্যাথায় কান্না করলে তার কাছ থেকে ঘটনা শুনে ভুক্তভোগীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপাতালে ভর্তি করে তার পরিবার। সে স্থানীয় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র।

এ ঘটনায় গতকালই শিশুটির মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে দাগনভূঞা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর এদিন রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে মোমারিজপুর গ্রাম থেকে আসামিকে গ্রেপ্তার করে।

দাগনভূঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমতিয়াজ আহমেদ জানান, আসামিকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

Sharing is caring!