শহর প্রতিনিধি->>

আসন্ন পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের মনোনয়নের বিষয়ে আমার সঙ্গে সুসম্পর্ক রেখে লাভ নেই। সম্পর্ক রাখুন দলের তৃণমূল নেতা-কর্মী ও জনগণের সঙ্গে। তৃণমূল যাকে সমর্থন করবে দলের হাইকমান্ড তাকে নির্বাচিত করবে। ফেনীতে যে পরিমাণ উন্নয়ন হয়েছে তা আশপাশের অন্য কোনো জেলায় হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারী।

মঙ্গলবার দুপুরে শহরের একটি মিলনায়তনে ফেনী সদর ও পৌর আওয়ামী লীগের সদস্য পদ দেওয়া ও নবায়ন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ফেনী সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি করিমুল্লাহ বিকমের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শুসেন চন্দ্র শীলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জাতীয় পরিষদ সদস্য আব্দুর রহমান বিকম, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট হাফিজ আহমদ, ফেনী পৌরসভার মেয়র হাজী আলাউদ্দিন।

বক্তব্য রাখেন ফেনী পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী, পাঁচগাছিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহবুবুল আলম লিটন, ফাজিলপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুল হক রিপন, ফেনী সদর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জোহরা আরা জুসি, পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি তসলিম হাজারী, ১০ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কাশেম, কালিদহ ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মীর হোসেন মীর প্রমুখ।

সদস্য পদ দেওয়া ও নবায়ন উদ্বোধন শেষে সাংসদ নিজাম হাজারী অনুষ্ঠানে ফেনী পৌর ১ নম্বর ওয়ার্ড থেকে সদস্য পদ নবায়ন করে নেন।

নিজাম উদ্দিন হাজারী তার বক্তব্যে বলেন, নিজের ব্যক্তি স্বার্থে দলভারী করার জন্য বিএনপি-জামায়াতকে আওয়ামী লীগের সদস্য করবেন না। নব্য আওয়ামী লীগের কারণে ত্যাগীরা যেন কোণঠাসা না হয়। ত্যাগীদের ডেকে আনেন, যারা অভিমান করেছে, তাদের দলে ফেরান।

তিনি বলেন, দেশে কোনো অপশক্তি যাতে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে না পারে সেদিকে সবার খেয়াল রাখতে হবে। সবাই মিলে সেই অপশক্তিকে প্রতিহত করতে হবে। কোনো মাদকাসক্ত লোককে দলে স্থান দেওয়া যাবে না। খেয়াল রাখতে হবে কোনো মাদকাসক্ত লোক যেন দলের সদস্য হতে না পারে।

ভাস্কর্য বিরোধী প্রসঙ্গে সাংসদ বলেন, উগ্র মৌলবাদী শক্তি ষড়যন্ত্রে মেতেছে, তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। ভাস্কর্য বিরোধী উগ্র মৌলবাদীরা ফেনীতে কিছু করতে চাইলে দাঁতভাঙা জবাব দেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে পরশুরাম উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল মজুমদার, দাগনভূঞা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দিদারুল কবির রতন, ছাগলনাইয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, সোনাগাজী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটনসহ ইউনিয়ন ও ওয়ার্ডের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!