ছাগলনাইয়ায় প্রতিনিধি->>

ছাগলনাইয়ায় বিয়ের প্রলোভনে এক বিধবা নারীকে (২৮) ধর্ষণ, ধর্ষণে সহযোগীতা ও ভিডিও ধারণ করে প্রচারের হুমকি দিয়ে স্বর্ণ ও টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে এক নারীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। উপজেলার উত্তর সতর গ্রাম থেকে ধর্ষক মো. মোমিন হোসেন পাটোয়ারী (২৯), তার ভাবী রেহানা আক্তার (৪২) ও ভাই আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীকে (৩৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার বিকেলে তাদের তিনজনকে ফেনীর বিচারিক হাকিম আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

গ্রেপ্তার মো. মমিন হোসেন পাটোয়ারী উপজেলার চাঁদগাজী ইউনিয়নের উত্তর সতর গ্রামের মীর হোসেন পাটোয়ারীর ছেলে, রেহানা আক্তার একই গ্রামের বাহার উদ্দিন’র স্ত্রী ও মো. আনোয়ার হোসেন ওই গ্রামের মীর হোসেন পাটোয়ারীর ছেলে।

ছাগলনাইয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুবুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নির্যাতিত নারী বাদী হয়ে ছাগলনাইয়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৯ (১) ধারা ও পর্ণোগ্রাফি আইনে মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা যায়, ছাগলনাইয়া উপজেলার উত্তর সতর গ্রামের মো. মোমিন হোসেন পাটোয়ারীর স্থানীয় চাঁদগাজী বাজারে একটি দোকান রয়েছে। ওই নারী মাঝে মধ্যে তার দোকানে কেনাকাটার সুবাদে আলাপ পরিচয় হয়। মোমিন পরে ওই নারীর পাকিস্তান প্রবাসী স্বামীর মৃতুর খবর জানতে পারে। এরপর গত জুলাই মাসের শুরুতে ওই নারীকে বিয়ের প্রস্তাব করে এবং কথা বলার জন্য তার ভাবী রেহানা বেগমের বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে ওই নারীকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়, তার একমাত্র মেয়েকে নিজের মেয়ে হিসেবে গ্রহণ এবং তার নামে সম্পত্তি লিখে দেওয়ার অঙ্গীকার করেন। পরে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ওই নারী কান্নাকাটি করলে মোমিনের ভাবী রেহানা গিয়ে তাকে বিয়ে করার জন্য বুঝায় ও সান্তনা দেয়। ৩০ অক্টোবরও ভাবী রেহানার বাসায় ডেকে নিয়ে ফের ধর্ষণ করে এবং ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে।

এরপর ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারের হুমকি দিয়ে ওই নারী থেকে ৩ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও এক লাখ টাকা আদায় করে এবং বিয়ে করবে না বলে জানায়। ওই নারী ধর্ষণ, স্বর্ণ ও টাকা নেওয়া এবং ভিডিও ধারনের বিষয়টি মোমিন হোসেনের বড় ভাই আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারীকে জানালে তিনিও এসব কথা আর কাউকে না জানানোর জন্য বলে হুমকি দেন। গত ৫ নভেম্বর ওই নারীকে ডেকে রেহানার বাসায় নিয়ে মারধর করা হয়।

পরিদর্শক মাহবুবুর রহমান জানান, যে মুঠোফোন সেটে ভিডিও ধারণ করছে সেটি জব্দ করা হয়েছে। ডিএনএ টেষ্টের জন্য শুক্রবার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

Sharing is caring!