শহর প্রতিনিধি->>

ফুলগাজীতে চোখের টিউমারে আক্রান্ত স্কুল ছাত্র রাকিব হাসান (১৬) এর চিকিৎসায় এগিয়ে এলেন ফেনী পৌর মেয়র হাজী আলাউদ্দিন। সোমবার সকালে পৌরসভার মেয়রের কক্ষে মুন্সিরহাটের পৈথারা হাই স্কুলের নবম শ্রেণি পড়ুয়া শিক্ষার্থী রাকিব হাসানের চোখের অপারেশনের জন্য ৩০ হাজার টাকা অনুদান প্রদান করেন। এসময় প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজী, ফেনী পৌর কাউন্সিলর লুৎফুর রহমান খোকন হাজারী সহ অন্যান্য কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।

রাকিবের চিকিৎসার তহবিল সংগ্রহে এগিয়ে আসা জেলার স্বর্ণ কিশোরী মাহবুবা তাবাসসুম জানান, ‘মুন্সিরহাট পৈথারা গ্রামের আবুল বাশারের ছেলে রাকিব জন্মগতভাবে চোখের টিউমারে আক্রান্ত। এক চোখে টিউমারের কারণে অপর চোখে সে ভালোভাবে দেখতে পাইনা। স্থানীয় চিকিৎসকরা রাকিবের পরিবারকে জানিয়েছিলো, চোখ শরীরের বাকী অঙ্গ থেকে একটু সেনসিটিভ অঙ্গ হওয়ায় চিকিৎসার জন্য দেশের বাহির নিতে হবে। পরে রাজধানীর জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের চিকিৎসকরা অনেক পরিক্ষা নিরীক্ষা করে দেশেই অপারেশন করতে পারবে বলে জানিয়েছে। তবে তার চিকিৎসার বাবত খরচ আসতে পারে প্রায় এক লাখ টাকা যা রাকিবের দিনমজুর বাবার পক্ষে যোগাড় করা সম্ভব না। তাই আমার কয় ছেলে মেয়ে মিলে তার চিকিৎসা জন্য কিছু অর্থ কালেকশন করতেছি।’

এদিকে দরিদ্র বাবা-মা’র একমাত্র সন্তান রাকিবের চোখের টিউমার অপারেশন করার সামর্থ্য না থাকায় তার চোখের অপারেশনের অর্থ যোগাতে কাজ শুরু করেন ফেনীর কয়েকজন তরুণ। তারা
ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজীর কাছে গেলে তিনি পৌর মেয়রের সাথে তাদের সাক্ষাত করিয়ে অনুদান পাওয়ার ব্যবস্থা করে দেন।

রাকিব জানান, অর্থের অভাবে এতদিন আমার পরিবার অপারেশন করতে পারছিলো না। তার চোখের অপারেশনের জন্য ফেনী পৌর মেয়রের মতো সমাজের ধনাঢ্য ব্যক্তিদের সহযোগিতা কামনা করেন রাকিব।

পৌর মেয়রের অনুদান প্রদানের সময় ‘বন্ধু মহল ১৩’ এর সাধারণ সম্পাদক আবু সুফিয়ান অভি, মুনিয়া সিমরান, মাহামুদুল ইসলাম জিপাত, জেরিন তাসনিম, বিবি হালিমা হ্যাপি, তানভীর হাসান শান্তসহ অন্যান্য স্বেচ্ছাসেবকরা উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!