শহর প্রতিনিধি->>

বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতি ফেনীর নির্বাচনে আজ শনিবার (৭ নভেম্বর) মুখোমুখি হচ্ছেন রুবেল-বাচ্চু। মাছ প্রতীক নিয়ে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আরিফুল হোসাইন ভুঞা রুবেল ও ছাতা প্রতীক নিয়ে সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক বাচ্চু নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে।

ফেনী শহর ব্যাবসায়ী সমিতির অফিসে শনিবার সকাল ১০ টা থেকে শুরু হয়ে মধ্যাহ্ন বিরতি দিয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বাজুস নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২২২ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। নির্বাচন পরিচালনা পর্ষদের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ফেনী চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি আইনুল কবির শামীম। অন্য দুজন সদস্য হচ্ছেন এডভোকেট নুর হোসেন ও শহর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক পারভেজুল ইসলাম হাজারী।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী জানান, রুবেল দায়িত্ব পালনকালে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের পাশে ছিল। সুখে দু:খে বিপদে আপদে তাকে কাছে পাওয়া যায়। ভোটের পরিস্থিতি ভাল থাকলে ভোটটা তাকে দিবো।

বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আরিফ হোসেন ভুঞা রুবেল বলেন, ২০১৩ সালে আমি প্রথম নির্বাচিত হয়েছি। নির্বাচনের পর জুয়েলারি সমিতির ফান্ডে ৪ হাজারের কিছু বেশী টাকা পেয়েছিলাম। এবার নির্বাচন পরিচালনা কমিটির দায়িত্ব দেওয়ার আগ পর্যন্ত আমি ৭ লাখ ২৩ হাজার ২৮৬ টাকা জমা করতে সক্ষম হয়েছি। নির্বাচিত হওয়ার পর জুয়েলারি সমিতির অফিসকে ফেনী জেলার একটি মডেল অফিসে পরিনত করেছি। আগে জুয়েলারি দোকান গুলোতে নিম্নমানের স্বর্ণ বিক্রি হতো, এসব কম মূল্যের স্বর্ণ বিক্রয়ে নিরুৎসাহিত করেছি। এখন ব্যবসায়ী ভাইয়েরাও সেগুলো থেকে ফিরে এসেছেন। আমি ইতিমধ্যে ফেনীতে গোল্ড লাইফ প্রতিষ্ঠা করেছি।

তিনবারের সাধারণ সম্পাদক রুবেল বলেন, নির্বাচনে জিতলে ব্যবসায়ীদের সমিতি ও আনুষাঙ্গিক ব্যয় ৩০ শতাংশ কমানোর চেষ্টা করবো। আমাদের হিন্দু ধর্মবলম্বী ভাইদের জন্য দূর্গাপূজায় নবমীর দিন আধাবেলা ও দশমীর দিন পুরো বেলা ছুটি বাস্তবায়ন করবো। এছাড়া রমজানে ইফতার ফান্ডের ন্যায় বিশ্বকর্মা পূজায় সমিতির পক্ষ থেকে অনুদানের রীতি চালু করবো।

রোকেয়া জুয়েলার্সের স্বর্ত্বাধিকারী রুবেল আরও বলেন, নির্বাচনে জয়ী হলে সমিতি অফিস আরো প্রশস্ত করার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, যেন সকল সদস্য বসতে পারেন। আরও ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ তৈরীতে মনোনিবেশ করবো।

রুবেল অভিযোগ করেন, যাদের করোনার সময় দেখা যায়নি, মানুষের বিপদে আপদে দেখা যায় না অথচ নির্বাচনের সময় ভোট চাইতে দেখা যায়।

নির্বাচন নিয়ে সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী গোলাম ফারুক বাচ্চু জানান, আমাদের পরিষদের সবাই আমার সাথে মাঠে আছে। আমাকে জয়ী করতে তারা চেষ্টা চালাচ্ছে।

তিনি বলেন, আমি অতীতে একবার সাধারণ সম্পাদক ছিলাম তখন এত উন্নতমানের সুযোগ সুবিধা ছিল না। এখন ডিজিটাল বাংলাদেশ আমি যদি নির্বাচিত হয় ব্যবসায়ীদের সাথে আলাপ আলোচনা করে আরো উন্নয়ন কিভাবে হয় সে জন্য কাজ করবো।

তিনি বলেন, নির্বাচিত হলে ট্যাক্স, ভাড়া কমানোসহ যে কোন ধরনের সমস্যা সামাধানের চেষ্টা করবো। তিনি জানান, ব্যাবসায়ীদের উন্নতির জন্য ইতিমধ্যে একটি পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। তা মিটিং এ আলোচনা করে বাস্তবায়ন করা হবে। এছাড়াও সমিতির বিষয়ে সদস্যদের বিভিন্ন রকম বক্তব্য আছে। আমি জিতলে তা যাচাইয়ের ব্যবস্থা করব। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণশিল্প উন্নত করার জন্য যে যে পদক্ষেপ নিয়েছেন সেগুলো বাস্তবায়ন করার প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন বাচ্চু।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতি ফেনীর নির্বাচনে সভাপতিসহ ১৭টি পদের মধ্যে সারাধারণ সম্পাদক পদ ছাড়া অপর ১৬ পদে একক প্রার্থী থাকায় তারা সকলে ইতিমধ্যে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছে। সাধারণ সম্পাদক পদে শুধু ভোট অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

Sharing is caring!