শহর প্রতিনিধি->>

ফেনীতে ‘বঙ্গবন্ধু জাতীয় যুব দিবস’ পালিত হয়েছে। ‘মুজিব বর্ষের আহবান যুব কর্মসংস্থান’ এ প্রতিপাদ্যে যুবকদর স্বনির্ভর করতে এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টির উদ্যোগকে গতিশীল করতে রোববার সকালে দিবসটি উপলক্ষ্যে আলোচনা সভার আয়োজন করে জেলা প্রশাসন ও যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর।

জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ফেনীর উপ পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) আহম্মদ কবির মজুমদাদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন সিভিল সার্জন ডাঃ মীর মোবারক হোসাইন, অতিরিক্ত জেরা প্রশাসক (সার্বিক) মোছা.সুমনী আক্তার।

জেলা প্রশাসক বলেন, যুবকরাই আগামীর বাংলাদেশ। যুবকরা শুধু চাকরির জন্য বসে থাকবেনা। ১০-২০ জন যুবক মিলে পোল্ট্রি খামারসহ নানা রকমের ব্যবসা করে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে পারে। এজন্য যুবকদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সময় অপচয় না করে উদ্যোক্তা হবার প্রতি মনযোগ বাড়াতে হবে।

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ফেনীর উপ পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) আহম্মদ কবির মজুমদার জানান, যুব সমাজকে উদ্বুদ্ধ করে আত্মকর্মসংস্থানে নিয়োজিত করতে ও দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে জন্য যুব দিবস পালন করা হয়। যুব উন্নয়ন থেকে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত যুবকরা তাদের প্রকল্প জন্য যুব ঋণ পেয়ে থাকে। এছাড়াও শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠন ও শ্রেষ্ঠ যুবদের আমরা পুরষ্কার দিয়ে থাকি।

ইলা মিত্র ইয়ুথ ফাউন্ডেশনের যুব সদস্য বৃষ্টি পালের সঞ্চালনায় সভা শেষে যুবকদের মাঝে ঋণ, শ্রেষ্ঠ যুবক সংগঠন, শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠক ও শ্রেষ্ঠ আত্মকর্মীকে পুরস্কৃত করা হয়।

এবার যুব দিবসে শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠন হিসেবে পুরস্কার পেয়েছে স্মৃতি ফাউন্ডেশন, আরবান ইয়ুথ সোসাইটি, আমরা যুবরা চাই পরিবর্তন। শ্রেষ্ঠ সংগঠক হিসেবে পুরস্কৃত হয়েছেন নবুজ বাংলার নির্বাহী পরিচালক মো. জয়নাল আবেদিন রাসেল ও বাঘাইয়া গোল্ডেন ক্লাবের মো. সাইফুল ইসলাম। শ্রেষ্ঠ আত্মকর্মী হিসেবে পুরষ্কার পেয়েছে আশিক শাহরিয়ার ও খালেদা আক্তার।

সভায় জেলা প্রশাসনের উদ্ধর্তন কর্মকর্তা, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের কর্মকর্তা ও ফেনীর বিভিন্ন যুব সংগঠনের যুব সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!