নিজস্ব প্রতিবেদক->>

ফেনীতে বিশেষ কায়দায় পেটে করে বহনকালে চার হাজারট পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ তিন রোহিঙ্গাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
বুধবার (৮ নভেম্বর) রাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সামনে থেকে রোহিঙ্গাদের আটক করা হয়।  

গ্রেপ্তারকৃত তিনজন হলেন – কক্সবাজার জেলার টেকনাফ রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মোহাম্মদ বশিরের ছেলে মো. সাগর (১৯), রফিকের স্ত্রী সঞ্চিতা বেগম (২৫) ও সাদেক হোসেনের স্ত্রী খালেদা বেগম (২৭)।

ফেনী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক মোতাহার হোসেন জানান, নিয়মিত টহল অভিযান পরিচালনাকালে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেটকারকে সন্দেহ হলে সেটি থামিয়ে তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তারা মিরেরশ্বরাই এনা পরিবহনের কাউন্টারের সামনে থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে প্রাইভেটকারে ওঠেন বলে পুলিশকে জানায়। পুলিশ তাদের সন্দেহ না করার জন্য দুই নারীর সঙ্গে দুটি শিশুসন্তানও ছিল।

এ সময় তারা তাদের সঙ্গে ইয়াবা থাকার কথা অস্বীকার করেন। পরে পুলিশ তাদেরকে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে এক্স-রে করায়। এক্স-রে রিপোর্ট সামনে এলে তারা পুলিশের কাছে ইয়াবার কথা স্বীকার করে।

আটকরা জানায়, তারা সিন্থেটিককে মোড়ানো ইয়াবাগুলো কলার মাধ্যমে সেবন করেছিল। পরে গন্তব্যে পৌঁছে পায়ুপথ দিয়ে সেগুলো বের করে পরিষ্কার করে যথাস্থানে পৌঁছে দেওয়ার কথা ছিল।

ফেনী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চার হাজার পিস ইয়াবাসহ দুই নারীসহ তিন জনকে আটকের পর ফেনী জেনারেল হাসপাতালে এক্স-রেতে ইয়াবার উপস্থিতি নিশ্চিত হন। ইয়াবাসহ আটক ৩ রোহিঙ্গার বিরুদ্ধে মাদক আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।