বিশেষ প্রতিবেদক->>

দুই বছর পর পর কমিটি করার কথা থাকলেও ফেনী ছাত্রদলের বর্তমান কমিটির মেয়াদ হতে চলেছে প্রায় চার বছর। এতে ঝিমিয়ে পড়েছে সংগঠনটির কার্যক্রম। দীর্ঘদিনেও কমিটি না হওয়ায় পদপ্রত্যাশী ও তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যে অসন্তোষ বিরাজ করছে।

সংগঠন সূত্র জানায়, সর্বশেষ ২০১৮ সালের ১৬ জুলাই ফেনী ছাত্রদলের কমিটি গঠন করা হয়। এর এক মাস পর ২২ অক্টোবর কমিটি পূর্ণাঙ্গ করা হয়। কমিটিতে ৩৯৬ জনকে পদ দেওয়া হয়। তৎকালীন কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজিব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান অনুমোদিত ওই কমিটিতে সালাহউদ্দিন মামুনকে সভাপতি ও মোরশেদ আলম মিলনকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, মামুন ২০০২ সালে আর মোরশেদ ২০০০ সালে এসএসসি পাস করেন। মামুন-মোরশেদ ছাড়াও সুপার ফাইভে থাকা সিনিয়র সহ-সভাপতি ফরহাদ উদ্দিন চৌধুরী মিল্লাত, সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেন রিয়াদ বিয়ে করে সংসারি হয়েছেন।

সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন মানিক, মঈনুল হোসেন জ্যাকসন, ওসমান গনি মাহফুজ, বাপ্পা খোন্দকার, যুগ্ম-সম্পাদক মঞ্জুর হোসেন মঞ্জু, আলমগীর হোসেন, আলা উদ্দিন রুমন, কফিল উদ্দিন পাটোয়ারী, গোলাম মোর্শেদ শুভ, আকরাম হোসেন চৌধুরী রাসেল বিবাহিত। প্রচার সম্পাদক করিমুল হক সুমন ইতোমধ্যে পাড়ি দিয়েছেন ফ্রান্স এ।

ছাত্রদলের পদপ্রত্যাশী নেতারা বলছেন, নিয়মিত ছাত্রদের বাদ দিয়ে তুলনামূলক বয়স্কদের দিয়ে কমিটি করায় সংগঠনে গতি আসছে না। রাজনৈতিক ছাড়া সাংগঠনিক কর্মসূচি দীর্ঘদিন নেই। ফলে সংগঠনের নিয়মিত ছাত্ররা উৎসাহ হারিয়ে ফেলছেন।

জানতে চাইলে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি এসএম সালাহউদ্দিন মামুন বলেন, নতুন কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের পর থেকে ফেনী জেলা কমিটি নিয়ে এখনো আলোচনা হয়নি।

সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ আলম মিলন বলেন, জেলা ছাত্রদলের নতুন কমিটি গঠনের বিষয়টি অনেকদিন ধরেই আলোচনায় রয়েছে। রাজনৈতিক কর্মসূচির কারণে কমিটি গঠনে বিলম্ব হচ্ছে। তবে খুব শিগগির নতুন কমিটি দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ বলেন, নতুন কমিটি দেওয়ার চেষ্টা রয়েছে। আশা করছি আগামী প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আগেই প্রকৃত ছাত্রদের নেতৃত্বে এনে নতুন কমিটি দেওয়া হবে।