সোনাগাজী প্রতিনিধি->>

সোনাগাজীতে সাম্প্রতিক সময়ে কয়েকটি গরু চুরির ঘটনা কে কেন্দ্র করে সাঁড়াশি অভিযানে নেমেছে পুলিশ, শুক্রবার রাতে অভিযান চালিয়ে আন্তঃজেলা গরু চোর চক্রের ৮ সদস্যকে চট্রগ্রামের চান্দগাঁও, মাদারবাড়ি, মীরসরাই, ফেনীর কালিদহ ও সোনাগাজীর সাতবাড়িয়া থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একই সাথে চুরি যাওয়া ৪টি গরু উদ্ধার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- মতিগঞ্জ ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সাতবাড়িয়া গ্রামের আবদুল হকের ছেলে আরিফুল ইসলাম সোহাগ, দক্ষিণ চরচান্দিয়া গ্রামের আমিন উল্যাহর ছেলে আবুল কাসেম সিরাজ, ছিদ্দিকুর রহমানের ছেলে শহীদুল ইসলাম সোহেল, আনন্দিপুর গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে মো. আরিফ, চরগণেশ গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে মো. রাসেল, ফেনী সদর উপজেলার মধ্যম ধলিয়া গ্রামের বকু হোসেনের ছেলে ইমাম হোসেন, যাত্রাসিদ্ধি গ্রামের সারোয়ার জাহান মামুন ও জিয়া উদ্দিন বাবলু।

পুলিশ জানায়, গত ১৩ দিনে সোনাগাজী উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে পৃথক ঘটনায় ১৫টি গরু চুরি হয়েছে। কয়েকটি গরু চুরির ঘটনা কে গুরুত্ব দিয়ে অভিযানে নামে পুলিশ। পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে উল্লেখিতদের গ্রেপ্তার করে এবং যুবলীগ নেতা আরিফুল ইসলামের খামার থেকে দুটি ও ফেনীর কালিদহ ইউনিয়নের যাত্রাসিদ্ধি গ্রামের রনির বাড়ি থেকে দুটি সহ মোট চারটি গরু উদ্ধার করে। শুক্রবার রাতে চট্টগ্রাম থেকে পাঁচজন, ফেনীর কালিদহ থেকে দুইজন এবং সোনাগাজীর সাতবাড়িয়া থেকে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. খালেদ হোসেন দাইয়্যান জানান, গরু চুরি বন্ধে অভিযান অব্যহত রয়েছে। চারটি গরুসহ আট চোরকে আটকের ঘটনায় উপ-পরিদর্শক সৌরজিৎ বড়ুয়া বাদী হয়ে ৯ জনের নামে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেপ্তারকৃতদের শনিবার বিকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, গরু মালিকদের প্রতি অনুরোধ করবো আপনারা নিজেদের গরু নিরাপদ হেফাজতে রাখবেন, একেবারে রস্তার পাশে অরক্ষিত অবস্থায় রাখবেননা, আর যেকোন সমস্যা হলে পুলিশ কে অবগত করবেন।