ছাগলনাইয়া প্রতিনিধি->>

ছাগলনাইয়ায় বাবাকে বেদম পিটিয়ে মাথা ও চোখে গুরুতর জখম করেছে নেশাগ্রস্ত ছেলে সাইফুল ইসলাম। বাবাকে পিটিয়ে ক্ষান্ত হয়নি ছেলে ভেঙ্গেছে ঘরের আসবাবপত্র। হামলায় বাবার মাথায় ২৭টি সেলাইসহ দুই চোখ নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। সোমবার (১৬ মে) রাতে ছাগলনাইয়া উপজেলার মহামায়া ইউনিয়নের উত্তর সতর এলাকার হাজী আবদুর রশিদের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। পরে ছেলেকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

ভুক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা জানান, ছেলে সাইফুল ইসলাম একজন প্রবাসী। সে সম্প্রতি বিদেশ থেকে ফিরে মাদকের নেশায় জড়িয়ে বেপরোয়াভাবে চলছিল। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাধ্যমে বাবা হাজী আবদুর রউফের কাছে অভিযোগ এলে তিনি ছেলেকে বিভিন্ন সময় মাদক ও আড্ডা থেকে বিরত থাকতে শাসন করেন। একপর্যায়ে সোমবার রাতে ফের ডাক দিলে ছেলে সাইফুল ইসলাম ক্ষিপ্ত হয়ে বাড়িতে থাকা কাঠের চেয়ার ভেঙে চেয়ারের খুঁটি দিয়ে বাবার মাথায়, বুকে ও পিঠে বেদম আঘাত করে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে ছাগলনাইয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালে পাঠায় কিন্তু অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

ফেনী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ইকবাল হোসেন ভূঞা জানান, মাথায়, চোখ ও বুকে মারাত্মক জখম নিয়ে বৃদ্ধ বাবা হাজী আবদুর রউফ হাসপাতালে ভর্তি ছিল। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ছাগলনাইয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শহিদুল ইসলাম বলেন, খবর পেয়ে রাতেই সাইফুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ। মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছে ওসি।