ছাগলনাইয়া প্রতিনিধি->>

ঘর ভাড়া পরিশোধ না করায় ভাড়াটিয়ার বিরুদ্ধে মালিকের অভিযোগের ভিত্তিতে ভাড়াটিয়াকে তলব করায় ছাগলনাইয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বিরুদ্ধে দেওয়ানী মামলা করেছে ভাড়াটিয়া।

জানাগেছে, ছাগলনাইয়া পৌরসভার বাঁশপাড়া গ্রামের মৃত আবদুল মুনাফের ছেলে আবুল হাশেমের কাছে লিখিত চুক্তিপত্রের মাধ্যমে পাঁচ বছর আগে দোকানঘর ভাড়া দিয়েছিলেন একই গ্রামের মৃত বজলের রহমানের ছেলে নুরুল হক।ভাড়া নেয়ার পর থেকে নিয়মিত ঘরভাড়া পরিশোধ করলেও গত কয়েকমাস ধরে ভাড়া প্রদান বন্ধ করে দিয়েছে ভাড়াটিয়া আবুল হাসেম।

ভাড়াটিয়া আবুল হাশেম ওরফে টুপি হাশেম ভূমিদস্যু চক্রের সহযোগিতায় দোকান ঘরটি দখলে রাখার পাঁয়তারা শুরু করেছে বলে মালিক নুরুল হকের অভিযোগ। দোকানঘরটি দীর্ঘ অর্ধশতাব্দি ধরে মালিক নুরুল হকের ভোগদখলে আছে জানিয়ে প্রতিবেশী স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ভাড়াটিয়া হাশেমকে দয়া দেখিয়ে অপেক্ষাকৃত কম টাকায় মাসিক ভাড়ায় দোকানটি মালিক নুরুল হক ভাড়া দিয়েছিল। বর্তমানে দোকান মালিক নুরুল হক ঘর ভাড়া চাইতে গেলে ভাড়াটিয়া হাশেম অকাট্য ভাষায় তাদের গালমন্দ করে এবং দোকানটি তার নিজের বলে দাবি করে নানা রকম হয়রানি শুরু করেছে।

দোকান ভাড়া পরিশোধ না করায় আবুল হাশেম প্রকাশ টুপি হাশেমের বিরুদ্ধে ছাগলনাইয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া তাহেরের কাছে দোকান মালিক নুরুল হক লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে ভাড়াটিয়া হাসেমকে নোটিশের মাধ্যমে তিন দফায় তলব করলেও ভাড়াটিয়া হাসেম উপস্থিত না হয়ে ছাগলনাইয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজিয়া তাহেরের বিরুদ্ধে ফেনীর কোর্টে একটি দেওয়ানী মামলা দায়ের করে। (নং-৩৫/২০২২)।

এ বিষয়ে ইউএনও সাজিয়া তাহের জানান, যে কেউ কারো বিরুদ্ধে ইউএনওর নিকট অভিযোগ করলে ইউএনও তাকে তলব করতেই পারেন। মালিক পক্ষের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিন দফায় নোটিশের মাধ্যমে ভাড়াটিয়াকে তলব করলেও তিনি উপস্থিত না হয়ে উল্টো ইউএনওর বিরুদ্ধে হয়রানি ও সুনাম নষ্ট করতে কোর্টে মামলা করেছে ভাড়াটিয়া আবুল হাসেম।

এদিকে ভাড়াটিয়ার নানামুখী হয়রানীর মুখে পড়ে চরম বিপাকে পড়েছেন অসহায় দোকানঘরের মালিক মো. নুরুল হক। তিনি এ ব্যাপারে প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা কামনা করেছেন।