দাগনভূঞা প্রতিনিধি->>

উন্নত রাষ্ট্র ও জাতি গঠনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন, অগ্রগতি, সাফল্য ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা এবং চলমান সামাজিক সমস্যা মোকাবেলায় করণীয় শীর্ষক সচেতনতামূলক এক মহিলা সমাবেশ অনুষ্ছিত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে দাগনভূঞা উপজেলার রাজাপুরের কোরাইশমুন্সী বাজারে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ফেনীর সহকারী পরিচালক মো. আবদুল হামিদ।

জেলা তথ্য কর্মকর্তা রেজাউল রাব্বী মনিরের সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. কামাল উদ্দিন, সাংবাদিক ইমাম হাসান কচি, ইয়াছিন রনি।

মহিলা সমাবেশে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উদ্যোগ, সরকারের সাফল্য অর্জন ও উন্নয়ন ভাবনা বিষয়ে জনগণকে অবহিত ও সম্পৃক্তকরণ এবং ১০টি বিশেষ উদ্যোগ নিয়ে বিষয় তুলে ধরা হয়।

বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকার ভিশন-২০৪১ মোতাবেক উন্নত রাষ্ট্র ও জাতি গঠনে অগ্রগতি, অর্জন, সাফল্য, জনসম্পৃক্ততা বৃদ্ধিতে অঙ্গীকারাবদ্ধ। এছাড়াও চলমান মেগা প্রকল্পসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে চলমান উন্নয়নের তথ্যসমূহ উপস্থিত জনসাধারণকে অবহিত করা হয়।

জেলা তথ্য কর্মকর্তা শুরুতেই প্রধানমন্ত্রীর ১০টি জনবান্ধব উদ্যোগ সম্পর্কে অবহিত করেন। প্রত্যেকটি উদ্যোগের উদ্দেশ্য, অর্জন, ভবিষ্যত পরিকল্পনা সম্পর্কে বর্ননা করা হয়। কর্মসংস্থান ও শিল্পায়নের লক্ষ্যে সারাদেশে ১০০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল নির্মানের সরকারের পরিকল্পনা উল্লেখ করে ফেনীর সোনাগাজীতে নির্মায়মাণ দেশের সর্ববৃহৎ অর্থনৈতিক অঞ্চল সম্পর্কে বক্তারা আলোকপাত করেন।

তাঁরা বলেন, এর মাধ্যমে ফেনীর সাধারন মানুষের কর্মসংস্থান হবে। প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যেকটি উদ্যোগ জনসাধারনের জীবন মান উন্নয়নে অবদান রাখছে। সরকারের সুফল গ্রহণের জন্য সকলকে এই বিষয়গুলো জানতে এবং অপরকে জানাতে আহবান জানান।

এছাড়াও মাদক, যৌতুক, সন্ত্রাসবাদ ও গুজব প্রতিরোধে একযোগে সবাইকে কাজ করার আহবান জানান। যেকোন তথ্য যাচাই না করে কোন সিদ্ধান্ত নিতে বক্তারা বারণ করেন, কারন এর মাধ্যমে দেশের অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে যায়। কেউ কোন মিথ্যা তথ্য প্রচার করলে নিকটস্থ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে জানাতে অনুরোধ করা হয়।

মহিলা সমাবেশে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার শতাধিক মহিলা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত; ফেনী জেলা তথ্য অফিসের আয়োজনে গত নয় মাসে জেলার বিভিন্ন স্থানে প্রধানমন্ত্রীর ১০টি জনবান্ধব উদ্যোগ নিয়ে ১০টি মহিলা সমাবেশ, ২২টি উঠান বৈঠক, ১৩৫টি স্থানে চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, তিনটি স্থানে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিষয়ক আলোচনা সভা এবং ১৬০টি ইউনিটে মাইকিং কার্যক্রম পরিচালনাসহ নানা জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম চালিয়ে আসছে।