শহর প্রতিনিধি->>

শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের আন্দোলনের মুখে ফেনী সেন্ট্রাল হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম পদত্যাগ করেছেন। বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও ফেনী পৌরসভার কাউন্সিলর আশরাফুল আলম তাঁর পদত্যাগপত্র পাওয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন। এখন থেকে বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মোমেনুল হক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করবেন।

বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে ওই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে গত ৩০ মার্চ আন্দোলনে নামেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এর পরপরই এসব অভিযোগ তদন্তে জেলা প্রশাসন, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির উদ্যোগে পৃথক তিনটি কমিটি গঠন করা হয়। পরে গত রোববার ফেনী-২ আসনের সাংসদ নিজাম উদ্দিন হাজারী বিদ্যালয়টি পরিদর্শনে গিয়ে শিক্ষক ও ছাত্র প্রতিনিধি, বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতিসহ সংশ্লিষ্ট সবার সঙ্গে কথা বলেন। এরপর প্রধান শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্তের ঘোষণা করেন তিনি।

ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম এনসিটিবির পাঠ্যক্রমবহির্ভূত নিম্নমানের সহায়ক বই পাঠ্যসূচির অন্তর্ভুক্ত করেছেন এবং বিনা মূল্যের বই ২০ টাকায় কিনতে শিক্ষার্থীদের বাধ্য করেছেন। করোনাকালেও বিদ্যালয়ের নিয়মিত বেতন পরিশোধ করতে হয়েছে শিক্ষার্থীদের। এ ছাড়া উন্নয়ন ফি, সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে অ্যাসাইনমেন্ট ফি ছাড়াও মডেল টেস্ট বাবদ নেওয়া হয়েছে ৩৫০ টাকা। নিয়মিত আদায় করা হয়েছে পরীক্ষার ফি। বিদ্যালয়ের টাকা ব্যাংকে না রেখে নিজের কাছে রেখেছিলেন তিনি। ভবন নির্মাণের সামগ্রী কেনাকাটায় আর্থিক অনিয়ম, শিক্ষক-কর্মচারীদের সঙ্গে অশোভন আচরণসহ নানা অভিযোগে বেশ কিছুদিন ধরে শিক্ষার্থী ও শিক্ষক-কর্মচারীরা আন্দোলন করে আসছিলেন।

অভিযোগ ও পদত্যাগের বিষয়ে কথা বলতে প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলামের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি তা ধরেননি।

প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম পদত্যাগ করলেও তদন্ত যথানিয়মে চলছে বলে জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক আবু সেলিম মাহমুদ উল হাসান। তিনি বলেন, নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে ওই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের অসন্তোষ ছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। তদন্তে কোনো ধরনের অনিয়ম পাওয়া গেলে তাঁর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।