নিজস্ব প্রতিনিধি->>

ফেনীতে রোজায় বাহারি খেজুরের বিপুল সমাহার। ইফতারে পূর্ণতা পেতে খেজুরের চাহিদা সর্বত্র হওয়ায় ছোট-বড় দোকান ছাড়া ফুটপাতের ভ্যানেও পাওয়া যাচ্ছে নামি-দামি খেজুর।

জানা গেছে, হাজার বছর ধরে মুসলিম উম্মাহর ধর্মীয় অনুষ্ঠানাধিতে সুস্বাধু এই ফলটির প্রচলন থাকায় কদর বেশি। ইফতারের অন্যতম প্রধান আইটেম হিসেবে পরিচিত খেজুর। বাজারে আজোয়া, আমবার, বরণী, সুগায়ি, মরিয়ম, শাকাবী, জাবী সহ ৫০ জাতের খেজুর রয়েছে। এসব খেজুরের স্বাদ, আকৃতি ও বর্ণে রয়েছে ভিন্নতা।খেজুরের দাম কমে এখন সাধারণ মানুষের নাগালে।

সূত্র আরো জানায়, আজোয়া খেজুর বিখ্যাত হলেও দাম বেশি থাকায় এত দিন খুব কম পরিমাণে আমদানি হতো। মূলত হজ ও ওমরাহ যাত্রীদের মাধ্যমেই দেশে এই খেজুরের পরিচিতি বেড়েছে। সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে না থাকায় গুটিকয়েক আমদানিকারক এই খেজুর আমদানি করতেন। এবার দাম কমায় আমদানি অন্য সময়ের তুলনায় বেড়েছে বলে ব্যবসায়ীরা জানান। আমদানিকারক, পাইকারি ও খুচরা বাজারে হাত বাড়ালেই মিলছে এই খেজুর।

মহিপাল খোকন এন্টারপ্রাইজের স্বত্ত্বাধিকারী মাঈন উদ্দিন খোকন জানান, ফেনীতে রমজান ঘিরে প্রচুর পরিমান খেজুরের সরবরাহ রয়েছে। ক্রেতারা চাহিদা মতো সুলভমুল্যে আজোয়া, মরিয়ম সহ বিভিন্ন জাতের খেজুর কিনতে পারছে। তবে অন্যবারের তুলনায় এবার খেজুরে লোকসান গুনতে হচ্ছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।