আদালত প্রতিবেদক->>
পর পর তিন দফা পেছালো সোনাগাজীর আলোচিত তরুণী কামরুন নাহার রিমা ধর্ষণ মামলার রায় ঘোষনার দিন। সোনাগাজী পৌর শহরের চর গণেশ গ্রামের রিমা ধর্ষণ মামলার রায় ঘোষনার দিন ধার্য্য হয়েছে আগামী ২৫ জুন। এর আগে প্রথম দফায় ২৭ মে, দ্বিতীয় দফায় ১২ জুন ও তৃতীয় দফায় ১৯ জুন রায় ঘোষনার তারিখ ধার্য্য ছিলো।
ফেনীর দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) হাফেজ আহম্মদ জানান, ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বুধবার রায় ঘোষনার তারিখ ধার্য্য ছিল। বিচারক মামুনুর রশিদ ২৫ জুন পরবর্তী তারিখ ঘোষনা করেন।
আদালত সূত্র জানায়, ২০১৩ সালের ২৫ মে প্রতিদিনের মতো প্রাইভেট পড়তে যাচ্ছিল সোনাগাজী ছাবের পাইলট হাই স্কুলের তখনকার ৭ম শ্রেনীর ছাত্রী কামরুন নাহার রিমা। পথিমধ্যে চর গণেশ গ্রামের চৌধুরী লেন রাস্তার মোড়ে পূর্ব থেকে ওঁৎপেতে থাকা আবু বক্কর ছিদ্দিক সাগর তাকে জোরপূর্বক মাইক্রোবাসে তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বেলায়েত হোসেন বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করা হয়।
পুলিশ অভিযান চালিয়ে অপহৃত রিমাকে বান্দরবান থেকে উদ্ধার করে। রিমাকে ফেনী জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে তার শারিরীক পরীক্ষা করালে ধর্ষণের প্রমাণ মেলে। পরে অপহরনের মামলাটি ধর্ষণ মামলা হিসেবে রেকর্ডভুক্ত করা হয়।
মামলার আসামীরা হলো- চর ডুব্বা গ্রামের আবু তাহেরের ছেলে তিন সহোদর আবু বক্কর ছিদ্দিক সাগর (২০), আবু নাছের সোহাগ (২৩), মো: ইকবাল হোসেন (২৫), আবু তাহেরের স্ত্রী বিবি কাউসার (৪৫), মধ্যম চরচান্দিয়া গ্রামের আবুল হাশেমের ছেলে মো: আলাউদ্দিন আলো (২১), সুজাপুর গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে বায়েজিদ ফয়সাল (২০), চরগনেষ গ্রামের মোশারফ হোসেনের ছেলে মো: মাসুদ (২২), একই এলাকার নুর নবীর ছেলে মেজবাহ উদ্দিন পিয়াস (২২), মো: হোসেন আহম্মদের ছেলে মো: রিয়াজ ওরফে রিয়াদ (২৩), নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ থানার চরহাজার গ্রামের আবুল কালামের ছেলে মো: জাহাঙ্গীর আলম (২৩)।
দীর্ঘ তদন্তের পর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সোনাগাজী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) স্বপন চন্দ্র বড়ুয়া ওই বছরের ১২ জুলাই ১০ জনকে আসামী করে আদালতে চার্জশীট জমা দেন। মামলার দীর্ঘ শুনানিতে ১৩ জন স্বাক্ষীর মধ্যে ৭ জনের স্বাক্ষ্যগ্রহন করে আদালত। ১০ আসামীর মধ্যে গত ৬ মে ওই মামলায় জামিনে থাকা ৮ আসামীর জামিন বাতিল করে কারাগারে প্রেরণ করে।