ছাগলনাইয়া প্রতিনিধি->>

ছাগলনাইয়ায় ইউনিট্যাক্সের অবৈধ সীমানাপ্রাচীর নির্মাণ বন্ধ করে দিয়েছে উত্তেজিত জনতা। বুধবার উপজেলার ঘোপাল ইউনিয়নের দূর্গাপুর ২ নম্বর ওয়ার্ডের তুলাতলী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এলজিইডির ১৪ ফুট প্রশস্ত সড়ক দখল করে প্রতিষ্ঠানটি সীমানাপ্রাচীর নির্মাণের চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

জানা গেছে, ইউনিট্যাক্স কোম্পানি রেল ও হাইওয়ে সড়কের পাশে মুহুরীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের কোল ঘেঁষে ১০০ একর ফসলি জমিতে বালু ভরাট করছে। এ প্রকল্পের আওতায় ছয় মাস ধরে শত শত পিকআপ দিয়ে ফেনী নদী থেকে বালু তুলে ভরাট করা হচ্ছে বলে দাবি এলাকাবাসীর। এই ফসলি জমি ভরাট করায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের সেচ প্রকল্প বালুর নিচে তলিয়ে গেছে। এতে সরকারের কোটি কোটি টাকা জলে গেছে বলে অভিযোগ চাষিদের।

এলাকাবাসী জানান, বড় কোম্পানিটি এখানে ঘাঁটি গেড়ে বালু ভরাট করায় ঘোপাল ও শুভপুর ইউনিয়নে জলাবদ্ধতা দেখা দেবে। এরই মধ্যে ফসলের মাঠে জলাবদ্ধতা তৈরি হয়েছে। খাসজমিও তাদের দখলে চলে গেছে।

দীর্ঘদিন এসব দূর্ভোগ সহ্য করেই ছিলেন দুই ইউনিয়নের ১২ গ্রামের মানুষ। তবে গতকাল বুধবার এলজিইডির ২৪ ফুট প্রশস্ত সড়কটির ১০ ফুট রেখে কোম্পানির লোকজন সীমানাপ্রাচীর নির্মাণে গর্ত খুঁড়তে শুরু করলে শত শত নারী-পুরুষ একতাবদ্ধ হয়ে বাধা দেন। জোর করে নির্মাণকাজ চালাতে থাকলে উত্তেজিত জনতা কোম্পানির নির্মাণসামগ্রী ভেঙে গর্ত ভরাট করে দেন। এতে কোম্পানির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সটকে পড়েন।

ঘোপাল ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এনামুল হক জানান, কোম্পানির লোকজন জনগণের বাধা উপেক্ষা করে এলজিইডির সড়ক দখল করে সীমানাপ্রাচীর নির্মাণ শুরু করে। এ সময় এলাকাবাসীর প্রতিরোধের মুখে তারা প্রাচীর নির্মাণ বন্ধ করে চলে যান।

যুবলীগ নেতা ও ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান বলেন, কোম্পানির লোকজন জোর করে প্রাচীর নির্মাণ করতে গেলে এলাকাবাসীকে নিয়ে কাজে বাধা দিই। ইউনিট্যাক্সের বড় প্রকল্পের বালু ভরাট করতে গিয়ে খাল, নালা, কালভার্ট ভরাট করে ফেলেছে। এই কারণে এলাকায় জলবদ্ধতা দেখা দিতে পারে।

ইউনিটেক্সের সিনিয়র প্রশাসনিক কর্মকর্তা আবুল কালাম আযাদ জানান, সীমানাপ্রাচীর নির্মাণ করতে গিয়ে এলাকাবাসীর বাধার মুখে ফিরে এসেছেন তারা।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) উপজেলা প্রকৌশলী নজিবুর রহমান বলেন, কোম্পানি যদি তাদের সড়ক দখল করে প্রাচীর নির্মাণ করে, তাহলে উপজেলা প্রশাসনকে নিয়ে অভিযান চালিয়ে তা ভাঙা হবে।

Sharing is caring!