পরশুরাম প্রতিনিধি->>

পরশুরামে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে তিনটি ইউপির ২৭টি কেন্দ্রের ২৩টিই ঝুঁকিপূর্ণ মনে করছেন চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য প্রার্থীরা। নির্বাচনের দিন এসব কেন্দ্রে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।

আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় ইউপি নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার লক্ষ্যে গত রোববার রাতে পুলিশ প্রশাসন আয়োজিত মতবিনিময় সভায় ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্য প্রার্থীরা এই দাবি জানান। সম্প্রতি থানা প্রাঙ্গণে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় অংশ নেন মির্জানগর ও চিথলিয়া ইউপির চেয়ারম্যান ও সদস্য প্রার্থীরা।

পরশুরাম মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খালেদ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় মির্জানগর ও চিথলিয়া ইউপির চেয়ারম্যান ও সদস্য প্রার্থীরা নির্বাচন নিয়ে তাঁদের প্রত্যাশা, দাবি ও অভিযোগ তুলে ধরেন।

সভায় প্রধান অতিথি থেকে নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে হওয়ার প্রতিশ্রুতির পাশাপাশি বিভিন্ন দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (ছাগলনাইয়া সার্কেল) সোহেল পারভেজ।

সভায় অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়ে একাধিক প্রার্থী নির্বাচনে সহিংসতা ও ভোট কারচুপির আশঙ্কা করে প্রতিটি কেন্দ্রে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রাখার দাবি জানান।

এ সময় মির্জানগর ইউপির স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আলি আকবর ভূঁইয়া বলেন, নৌকার পক্ষের লোকজন বলে বেড়াচ্ছেন, ভোটের দিন প্রকাশ্যে নৌকায় সিল মারা হবে। স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীদের প্রচারে বাধা দেওয়া হচ্ছে। সমর্থকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

সহকারী পুলিশ সুপার সোহেল পারভেজ (ছাগলনাইয়া সার্কেল) বলেন, একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে পুলিশ প্রশাসন সবকিছু করবে। নির্বাচনে কেউ সহিংসতা সৃষ্টি করতে চাইলে তাদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে।

Sharing is caring!