সদর প্রতিনিধি->>

ফেনীর ফাজিলপুরে বিয়ের প্রলোভনে এক স্কুলছাত্রীকে (১৫) ধর্ষণের অভিযোগে মো. মুন্না (২০) নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে মামলা করেছে ছাত্রীর বাবা। বুধবার বিকেলে ফেনীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট মো. জাকির হোসাইনের আদালতে ওই ছাত্রী ২২ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেছে।

অভিযুক্ত মো. মুন্না ফেনী সদর উপজেলার ফাজিলপুর ইউনিয়নের ফাজিলপুর গ্রামের মো. হেলাল মিয়ার ছেলে।

মামলার এজহার সূত্র জানায়, স্থানীয় এক স্কুল ছাত্রী স্কুলে আসা যাওয়ার সময় বিভিন্ন অজুহাতে নানা ভাবে দেখা সাক্ষাত করতো বখাটে মো. মুন্না। এক পর্যায়ে প্রেমের অভিনয় শুরু করে ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভন দেয় মুন্না। ওই ছাত্রীকে বিয়ের কথা বলে গত ২৬ সেপ্টেম্বর সকালে বাড়ী থেকে তাকে বের করে ফেনী নিয়ে যায় মুন্না। পরে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ফেনীর মহিপাল এলাকায় একটি আবাসিক হোটেলে নিয়ে সেখানে তাকে ধর্ষণ করে। পর দিন ওই ছাত্রীকে বাড়ীর কাছে নিয়ে ছেড়ে দিয়ে মুন্না চলে যেতে থাকে। তখন স্কুল ছাত্রী তার সাথে প্রতারনার বিষয়টি কিছুটা আঁচ করতে পেরে শোর চিৎকার শুরু করে। স্থানীয় লোকজন এগিয়ে গিয়ে বখাটে আটক করে। পরে গ্রাম্য সালিশে ওই ছাত্রীর সাথে অভিযুক্ত মুন্নার বিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। এ সময় কৌশলে ওই স্থান থেকে পালিয়ে যায় মুন্না।

ফেনী মডেল থানায় অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নিজাম উদ্দিন জানান, ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মঙ্গলবার থানায় মামলা করেন। ফেনী জেনারেল হাসপাতালে নির্যাতিতার ছাত্রীর শারীরিক পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। মামলার আসামীকে গ্রেপ্তারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

Sharing is caring!