আদালত প্রতিবেদক->>

ফেনীতে আদালতের নথি চুরির দায়ে নুরুল হক ওরফে জামাল উদ্দিন নামের একজনের ৫ বছরের কারাদন্ড দিয়েছে আদালত। বুধবার ফেনীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসাইন আদালতের এজলাস কক্ষ থেকে একটি ফৌজদারী মামলার নথি ও আপীল নথি চুরির দায়ে একজনকে দোষী সাব্যস্তক্রমে দ্যা পেনাল কোডের ২টি পৃথক ধারায় দুইবছর ও তিন বছর করে মোট পাঁচ বছরের সশ্রম পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও পনের হাজার টাকা অর্থদন্ড, অনাদায়ে আরো ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেনে।

রায় ঘোষণার সময় আসমাী আদালতে অনুউপস্থিত ছিলেন। আসামী পলাতক থাকায় রায় ঘোষনা শেষে তার বিরুদ্ধে সাজা পরোয়ানা ইস্যু করা হয়। দন্ডপ্রাপ্ত নুরুল হক ওরফে জামাল উদ্দিন কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার রায়কোট গ্রামের আতাউর রহমানের ছেলে।।

আদালত সুত্র জানায়, ২০১৯ সালের ৪ এপ্রিল সকাল পৌনে ৮টা থেকে সাড়ে ৮ টার দিকে ফেনী জেলা জজ আদালতের ৩০৮নং কক্ষের এজলাস থেকে সি.আর-২৪৬/১২ ও ফৌজদারী আপীল মামলা নং-৯৮/১৫ এর নথি কৌশলে চুরি করে আসামী নুরুল হক ওরফে জামাল উদ্দিন তার গ্রামের বাড়ীতে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে ঘটনা জানাজানি হলে ফেনীর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের নাজির সামছুল কিবরিয়া বাদী হয়ে ফেনী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তে থানার এসআই মো. দুলাল মিয়া ওই বছরের ১১ এপ্রিল আসামীর ঘর থেকে নাঙ্গলকোট থানা পুলিশের সহায়তায় ওই নথি উদ্ধার করে জব্দ করেন। পরে তদন্ত শেষে এসআই দুলাল মিয়া আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

এই মামলায় বিচারকালে আসামী নুরুল হক ওরফে জামাল উদ্দিনের সহোদর ভাই ও তার গ্রামের ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যসহ মোট ৯ জন সাক্ষী সাক্ষ্য প্রদান করেন। বুধবার ফেনীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসাইন আদালত ফৌজদারী মামলার নথি ও আপীল নথি চুরির দায়ে নুরুল হক ওরফে জামাল উদ্দিনকে দোষী সাব্যস্তক্রমে দ্যা পেনাল কোডের ২টি পৃথক ধারায় দুইবছর ও তিন বছর করে মোট পাঁচ বছরের সশ্রম পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও পনের হাজার টাকা অর্থদন্ড, অনাদায়ে আরো ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেনে।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের কৌসুলী ছিলেন এপিপি সৈয়দ আবুল হোসেন ও আসামীপক্ষে আইনজীবী মো. নুরুল হক মামলা পরিচালনা করেন। নথি চুরি হওয়া মামলায় নুরুল হক ওরফে জামাল উদ্দিন ও তার স্ত্রী দন্ডপ্রাপ্ত ছিলেন এবং পরবর্তীতে আপীলেও ওই দন্ড বহাল থাকে।

Sharing is caring!