সদর প্রতিনিধি->>

ফেনীতে এনজিও ‘ঋণের কিস্তি’ পরিশোধে ব্যর্থ হয়ে লিপি রানী দাস(৪৫) নামে নারী ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। শনিবার দুপুরে শহরতলীর তুলাবাড়ীয়া গ্রামের কৈলাশ সাদু বাড়ি থেকেগলায় উড়না পেঁচিয়ে সিলিং ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত লিপির মরদেহ উদ্ধার করে করেছে পুলিশ। নিহত লিপি ওই বাড়ির নারায়ন চন্দ্র দারে স্ত্রী। তার স্বামী, ছেলে ও মেয়ের জামাই তিনজনই পুলিশে কর্মরত রয়েছে।

তুলাবাড়িয়া গ্রামের ইউপি সদস্য নেপাল চন্দ্র শীল নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে জানান, নিহত লিপি বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়েছেন। শুক্রবার ও শনিবার এক লাখ আশি হাজার টাকা
কিস্তি পরিশোধের কথা ছিলো। শনিবার ভোরে কোনো এক সময় তিনি গলায় পাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। ধারনা করা হচ্ছে এনজিও খণ পরিশোধে ব্যর্থ হয়ে তিনি আত্মহত্যা করেছেন।

নিহতের স্বজনরা জানায়, ফেনী পৌরসভার মধুপুর গ্রামে মনি দাসের মেয়ে লিপি রানী দাস। গত ১০ দিন পূর্বে লিপি মা মারা যায়। লিপির স্বামীর নাম নারায়ন চন্দ্র দাস, ছেলে সুষময় দাস অমৃত ও মেয়ে জামাই তিন জনই পুলিশ কর্মরত রয়েছে।

ফেনী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আলমগীর হোসেন জানান, প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে লিপি রানী আত্মহত্যা করেছেন। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফেনী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত হওয়া যাবে। এঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

Sharing is caring!