শহর প্রতিনিধি->>

ফেনীতে মাদক মামলার আসামীকে ৮ শর্তে সংশোধনের সুযোগ দিয়েছে আদালত। বুধবার ফেনীর জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসাইনের আদালতে আসামী মো. হেলালকে (২৯) ভবিষ্যতে কখনো মাদক গ্রহণ, পরিবহন ও বিক্রয় না করাসহ ৮টি শর্তে কারাদণ্ডের পরিবর্তে সংশোধনের সুযোগ দিয়ে রায় ঘোষণা করেছে। সংশোধনের সুযোগ পাওয়া হেলাল জেলার সোনাগাজী উপজেলার মান্দারী গ্রামের নুর আলমের ছেলে।

আদালত সূত্র জানায়, চলতি বছরের ২৩ মার্চ সোনাগাজীর বগাদানা ইউনিয়নের পাইকপাড়া গ্রাম থেকে ৫০ গ্রাম গাঁজাসহ হেলালকে আটক করে পুলিশ। ১৩ জুলাই সোনাগাজী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোখলেছুর রহমান মামলাটি তদন্ত করে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এরপর ১৩ অক্টোবর আদালত আসামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

অভিযোগ গঠনের সময় আসামী মো. হেলাল অনুতপ্ত হয়ে মাদক সেবনের বিষয়টি আদালতে স্বীকার করেন। একইসঙ্গে ভবিষ্যতে কখনো মাদক গ্রহণ, পরিবহন ও বিক্রয় করবেন না মর্মে তার জবানবন্দিতে অঙ্গীকার করেন। পরবর্তীতে আদালত সোনাগজীর প্রবেশন কর্মকর্তাকে আসামীর বিষয়ে অনুসন্ধান পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ প্রদান করেন। ২৭ অক্টোবর সোনাগাজী উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা নাছির উদ্দিন বিস্তারিত প্রতিবেদন দাখিল করেন।

পুলিশ জানান, আসামী হেলাল পেশায় রাজমিস্ত্রি। আসামী তার বৃদ্ধ মা ও বাবার ভরণপোষণের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। আসামীর বিরুদ্ধে সাজা ঘোষণা হলে তার মা-বাবার ভরণপোষণ ও যত্নের সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। এসব দিক বিবেচনা করে বিচারক আসামীকে ৮ শর্তে এক বছরের জন্য দণ্ড ঘোষণা না করে প্রবেশন প্রদান করেন।

আদালত সূত্র জানায়, প্রবেশনের শর্তগুলোর মধ্যে আসামী কখনো মাদক গ্রহণ, সেবন ও বিক্রয় করবেন না। তিনি মাদক বিরোধী কার্যক্রমে ভূমিকা রাখবেন। সপ্তাহের প্রতি সোমবার প্রবেশন কর্মকর্তার কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে মাদক বিরোধী কার্যক্রমে অংশ নেবেন। মুক্তিযুদ্ধ ও দেশপ্রেমের বিষয়ে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করবেন। মা-বাবার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করবেন।

প্রসঙ্গত, গত দেড় মাসে ফেনীর আদালতে এক নারীসহ তিনকে মাদক মামলায় কারাদন্ডের পরিবর্তে সংশোধনের সুযোগ দিয়েছে।

Sharing is caring!