ছাগলনাইয়া প্রতিনিধি->>

ছাগলনাইয়ায় স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন করে আহত করার অপরাধে স্বামীসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে নির্যাতিতা গৃহবধু। ছাগলনাইয়া উপজেলার শুভপুর ইউনিয়নের হাজারী পুকুরপাড়ে পারিবারিক কলহের জের ধরে শাহেদা আক্তার (২০) নামের এক সন্তানের জননীকে মারধর ও হাত ভেঙ্গে দেওয়ার অপরাধে নির্যাতিতা গৃহবধু বাদী হয়ে স্বামী জাহিদুল ইসলামসহ পাঁচজনকে আসামী করে ছাগলনাইয়া থানায় মামলা দায়ের করেছে।

নির্যাতিতা গৃহবধুর পরিবার জানায়, ২০১৫ সালে উপজেলার ঘোপাল ইউনিয়নের দূর্গাপুর গ্রামের সিরাজুর হকের মেয়ে সাহেদা আক্তারের সাথে পাশবর্তী শুভপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ কহুমা গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে জাহিদুল ইসলামের (২৯) বিয়ে হয়। তাদের ঘরে চার বছর বয়সী একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। অতি সম্প্রতি পারিবারিক ও সামাজিক বিষয় নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে নিয়মিত ঝগড়া লেগে থাকতো।

গত শুক্রবার বিকেলে হাজারী পুকুরপাড় এলাকায় তাদের ভাড়া বাসায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়ার এক পর্যায়ে মারধর করে স্বামী জাহিদ। এ সময় লাঠি দিয়ে স্ত্রীর হাতে আঘাত করলে সাহেদার হাতের হাঁড় ভেঙ্গে শরীরে মারাত্বক জখন হয়। মারধর করে স্বামী জাহিদ চুলের মুষ্ঠি ধরে শাহেদাকে রাস্তার ওপর এনে মৌখিক তালাক দিয়েছে। সাহেদা আহত হওয়ার খবর পেয়ে তার স্বজনেরা ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে ছাগলনাইয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্রেক্সে ভর্তি করে।

ছাগলনাইয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেজবাহ উদ্দিন আহম্মদ জানান, নির্যাতনের ঘটনায় গৃহবধু বাদি হয়ে স্বামী জাহিদুল ইসলামসহ পাঁচজনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেছে। ঘটনার তদন্ত চলছে। আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

Sharing is caring!