দাগনভূঞা প্রতিনিধি->>

দাগনভূঞা থানার নতুন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা/অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হয়েছেন ইমতিয়াজ আহমেদ। শুক্রবার দাগনভূঞায় থানায় যোগদান করার কথা রয়েছে বলে জেলা পুলিশের একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে। ইমতিয়াজ আহমেদ এর আগে জেলা পুলিশের বিশেষ শাখা (ডিআইও-২) হিসেবে কর্মরত ছিলো। দাগনভূঞা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসলাম সিকদারকে প্রত্যাহার করায় ইমতিয়াজ আহমেদকে দাগনভূঞা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে পদায়ন করা হয়েছে।

গত বুধবার দাগনভূঞা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসলাম সিকদারকে প্রত্যাহার করে চট্টগ্রাম রেঞ্জ পুলিশ কন্ট্রোল রুমে সংযুক্ত করা হয়েছে। পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত এক আদেশে তাকে দাগনভূঞা থানা থেকে প্রত্যাহার করা হয় বলে জানিয়েছেন ফেনী পুলিশ সুপার খোন্দকার নুরুন্নবী।

পুলিশ সূত্র জানায়, চট্টগ্রামের আগ্রাবাদের যমুনা ট্রেডিং নামের একটি প্রতিষ্ঠানের মালিক সিএন্ডএফ ব্যবসায়ী ও দাগনভূঞা আই কেয়ার এন্ড জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক রফিফুল ইসলামের পারিবারিক বিষয় নিয়ে তার ভাইদের মধ্যে দীর্ঘদিন বিরোধ চলছে। ওই ঘটনায় তার অপর এক ভাই (পুলিশ কর্মকর্তা) নুরুল আলমের কেয়ারটেকার লাইজু বেগম বাদী হয়ে গত ২০ সেপ্টেম্বর দাগনভূঞা থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম, তার প্রবাসী ভাই নাসির উদ্দিন (সাবেক সিআইপি) ও আনোয়ার হোসেনকে আসামি করে।

এ বিষয়ে ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম মিথ্যা মামলায় হয়রানি করার দায়ে দাগনভূঞা থানার ওসি আসলাম সিকদারের বিরুদ্ধে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি বরাবর গত ১১ অক্টোবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। পরবর্তীতে চট্টগ্রাম রেঞ্জের পুলিশ সুপার হাসান বারী নূর অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করেন। পরে চট্টগ্রাম রেঞ্জ ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন স্বাক্ষরিত এক আদেশে বুধবার ওসি আসলাম সিকদারকে প্রত্যাহার করা হয়।

Sharing is caring!