আদালত প্রতিবেদক->>

ফুলগাজীতে ১০ বছরের শিশু ভাতিজিকে ধর্ষণের দোষ স্বীকার করে জেঠা সামছুল হুদা (৫০) আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। সোমবার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট-৩ এর বিচারক এএসএম এমরানের আদালত আসামী সামছুল হুদার জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও ফুলগাজী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোশারফ হোসেন জানান, জবানবন্দিতে আসামী সামছুল হুদা গত ১২ অক্টোবর দুপুরে ডেকে নিয়ে ভাতিজি শিশুটিকে ধর্ষণের বর্ণনা দিয়েছে। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন তিনি।

এদিকে একইদিন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট-১ এর বিচারক শরাফ উদ্দিন আহমেদের আদালতে নির্যাতনের শিকার শিশুটি ২২ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করেন। পরে শিশুটিকে মামলার বাদী ফুফু মনি আক্তারের জিন্মায় দেন তদন্তকারী কর্মকর্তা।

ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ কুতুব উদ্দিন জানান, ওই শিশুর মা ও বাবা নেই। গত কয়েক বছর থেকে জেঠার কাছেই প্রতিপালিত হচ্ছিল। গত ১২ অক্টোবর দুপুরে জেঠা তার ভাতিজী শিশুটিকে কাছে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করে। এর এক সপ্তাহ আগেও চট্টগ্রামে এক বাসায় কাজের মেয়ে হিসেবে দেওয়ার কথা বলে বাড়ী থেকে নিয়ে সেখানেও একাধিকবার ধর্ষণ করে।রোববার বিকেলে ধর্ষণের মামলা দায়েরের পর জেঠাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওইদিন রাতেই ফেনী জেনারেল হাসপাতালে তার শারিরীক পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। জেঠা সামছুল হুদা ফুলগাজী সদর ইউনিয়নের জয়পুর গ্রামের বাসিন্দা।

Sharing is caring!