শহর প্রতিনিধি->>

ফেনীর পাঠানবাড়ি রোডের বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া ইউনুছ বাবু (২২) হত্যার মামলার প্রধান আসামীকে দ্রুত গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে পরিবার ও এলাকাবাসীরা।

শনিবার বিকেলে শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে অংশ নেন বাবুর বাবা মো. ইউসুফ, মা রেজিয়া বেগম, ছোট ভাইা মো. ইফরান বাপ্পি, ছোট বোন ছোট বোন নুসরাত জাহান, খালা রোকেয়া বেগম, মামী নাজমা আক্তার সহ আত্মীয় স্বজনরা অংশ নেন।

বাবুর বাবা ইউসুফ বলেন, ঘটনার ৯দিন পার হলেও বাবু হত্যা মামলার প্রধান আসামী মো. ইউনুছ নবী রাকিবকে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এ হত্যাকান্ডে সে সরাসরি জড়িত। পুলিশের সহযোগীতায় রাকিব ফেনী ছেড়ে পলাতক অবস্থায় রয়েছে।

বাবুর মা রেজিয়া বেগম বলেন, আমার ছেলেকে পড়াশোনার জন্য চীনে পাঠিয়েছিলাম। করোনা পরিস্থিতির কারণে বাবু দেশে আসে। বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) রাতে বাবু যখন ঘর থেকে বের হচ্ছিল তাকে জিজ্ঞাসা করলে সে জানিয়েছিল রাকিব ও শাহরিয়ারের সাথে কোথাও যাচ্ছে। এর পরদিন শুক্রবার তাসপিয়া ভবনের সেপটিক ট্যাংকি হতে শাহরিয়ারকে উদ্ধার করে বাবু নিখোঁজ ছিল। এর পরের দিন শনিবার ওই ভবনের সেপটিক ট্যাংকি হতে বাবুর লাশ উদ্ধার করা হয়। ঘটনার সাথে সরাসরি জড়িত কেয়ারটেকার শাহীনকে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। অথচ এখন পর্যন্ত রাকিবকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

বাবুর ভাই মো. ইফরান বাপ্পি বলেন, রাকিব যদি এ হত্যাকান্ডের সাথে না থাকে তাহলে সে পালিয়ে গেল কেন? আমাদের দাবি রাকিবকে অবিলম্বে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে এ হত্যাকান্ডের মূল রহস্য বেরিয়ে আসবে।

প্রসঙ্গত, গত ১০ অক্টোবর রাতে ফেনী শহরের পাঠানবাড়ী সড়কের তাসপিয়া ভবন নামে একটি বহুতল ভবনের সেপটিক ট্যাংক থেকে ডিপ্লোমা প্রকৌশলী মো. ইউনুছ বাবুর অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ছাড়া মো. ইউনুছ বাবুর অপর এক বন্ধু মো. শাহরিয়ারকেও একই সময় পিটিয়ে মৃত মনে করে ওই একই সেপটিক ট্যাংকে ফেলা হয়েছে। স্থানীয়রা টের পেয়ে তাঁকে মুমূর্ষু অবস্থায় সেপটিক ট্যাংক থেকে উদ্ধার করেন। তিনি বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এ ঘটনায় মো. ইউনুছ বাবুর মা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছে। ওই মমলায় তাসপিয়া ভবনের কেয়ারটেকার (তত্বাবধায়ক) মো. মোজাম্মেল হক শাহীনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭দিনের রিমান্ডে নিয়েছে। হত্যা মামলার অন্যতম আসামী ইউনুছ নবী রাকিবকে এখনো গ্রেপ্তার করা যায়নি।

Sharing is caring!