শহর প্রতিনিধি->>

ফেনীতে ধর্ষণবিরোধী লংমার্চে উত্তাল ছিলো জেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার মিনার। সকাল পৌনে ১০টায় লংমার্চ বহরটি ফেনীর শহীদ শহীদুল্লাহ কায়সার সড়ক হয়ে শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সমাবেশে মিলিত হয়।

শ্লোগানে শ্রোগানে মুখরিত শহীদ মিনারে বেদিতে ফেনী ও কেন্দ্রীয় উদিচি শিল্পী গোষ্ঠির শিল্পীরা গণসংগীত ও পথনাটক উপস্থাপন করে। এসময় বক্তব্য রাখেন ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি মাসুদ রানা, ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি মেহেদী হাসান নোবেল, বাংলাদেশ নারী মুক্তি কেন্দ্রের সভাপতি সীমা দত্ত, সমাজত্রান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি আল কাদরী জয় প্রমুখ।

সমাজত্রান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের সভাপতি আল কাদরী জয় জানান, এ সরকার ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় নারীরা বেশি নির্যাতিত হচ্ছে। অহরহ ধর্ষণের শিকার হচ্ছে। অর যদি একটি ধর্ষণের শিকার হয় কোন নারী তাহলে প্রধানমন্ত্রীকে পদত্যাগ করতে হবে।

লংমার্চে অংশ নেয় বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, নারী মুক্তি কেন্দ্র, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টসহ ফেনীর চারণ সাংস্কৃতিক কেন্দ্র, উদীচী ফেনী জেলা সংসদ।

সাম্প্রতিক সময়ে দেশজুড়ে ধর্ষণ, যৌন হয়রানি ও নারীর প্রতি ক্রমবর্ধমান সহিংসতার ঘটনা এবং বিচারহীনতার সংস্কৃতির প্রতিবাদে ঢাকা থেকে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলা পর্যন্ত লংমাচর্টি শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকার শাহবাগ থেকে শুরু হয়। ‘ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ’ ব্যানারে ৯টি দাবি নিয়ে দু’দিন ব্যাপি লংমার্চটিতে কয়েকটি বামপন্থী ও নারী সংগঠনের ৫’শতাধিক নেতা-কর্মীরা অংশগ্রহণ করছে।

Sharing is caring!