দাগনভূঞা প্রতিনিধি->>

ফেনীর দাগনভূঞায় পূর্ব চন্দ্রপুর ইউনিয়নের বৈইঠারপাড় গ্রামের ১০ বছর বয়সি এক কন্যা শিশুকে যৌন নিপীড়নের দায়ে কবির আহমদ (৩৮) নামে এক ভ্যান চালক গ্রেফতার করেছে পুলিশ। একই সাথে ঘটনাটি টাকার বিনিময় ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করায় কামাল উদ্দিন (৪৮) নামে এক স্থানীয় সালিশদারকে গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় দাগনভূঞা থানায় আজ শনিবার মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগী শিশুটির মা। শিশুটি স্থানীয় একটি মাদ্রাসার চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ৪ অক্টোবর দুপুরে পূর্ব চন্দ্রপুর ইউনিয়নের বৈইঠারপাড় গ্রামের ভোলাভালা খাল নামক এলাকায় নির্যাতিত শিশুটি খেলতে যায়। এসময় শিশুটিকে কাছে ডাকে একই বাড়ির বাসিন্দা ও শিশুটির চাচা সম্পর্কিত ভ্যান চালক কবির আহমদ। পরে শিশুটির কাপড় খুললে শিশুটি কান্নাকাটি শুরু করে। এক পর্যায়ে কবির আহমদ শিশুটিকে দশ টাকার নোট দিয়ে কান্নাকাটি থামায়। ঘটনাটি শিশুটি বাড়িতে গিয়ে তার মাকে জানালে নির্যাতিত শিশুটির মা ঘটনাটি বাড়ির লোকজনকে ও স্থানীয় সালিশদার কামাল উদ্দিন কে জানায়। কামাল উদ্দিন ভ্যান চালক কবির আহমদ থেকে ১২ হাজার টাকা নিয়ে বিষয়টি নিষ্পত্তি করে দেয়। ঘটনাটি জানাজানি হলে আজ শনিবার স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাসুদ রায়হান তাদেরকে ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে আনে এবং বিষয়টি থানা পুলিশকে অবগত করে। পরে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃত কবির আহমদ (৩৮) বৈঠারপাড় গ্রামের আমান উদ্দিন বেপারি বাড়ি মৃত জালাল আহমেদের ছেলে। আর কামাল উদ্দিন  একই গ্রামের মৃত দেলোয়ার হোসেনের ছেলে।

দাগনভূঞা থানার ওসি আসলাম সিকদার জানান, ঘটনাটি জানতে পেরে আমরা দ্রুত দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হই। আগামীকাল রোববার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।

Sharing is caring!