ঢাকা অফিস->>

বাজারে বোতলজাত সয়াবিন তেলের দাম লিটারপ্রতি ৫ টাকা বাড়িয়েছে বিপণনকারী কয়েকটি কোম্পানি। দাম বাড়ানোর বিষয়টি তারা বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের (বিটিটিসি) দ্রব্যমূল্য পর্যবেক্ষণ সেলকে জানিয়েছে।

নতুন দাম অনুযায়ী, বিভিন্ন ব্র্যান্ডের তেলের এক লিটারের সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য (এমআরপি) দাঁড়াবে ১১৫ টাকা। পাঁচ লিটারের বোতলের দাম হবে ৫৫৫ টাকা, যা এত দিন ছিল ৫৩০ টাকা। নতুন দামে তেল সরবরাহ শুরু করেছে কোম্পানিগুলো, যদিও এখন সব বাজারে পৌঁছায়নি।

বিপণনকারীরা গত মাসেও এক দফায় সয়াবিন তেলের দাম লিটারপ্রতি ৪ টাকা বাড়িয়েছিলেন। তাঁরা ভোজ্যতেলের দাম বাড়ার জন্য আন্তর্জাতিক বাজারকে দুষছেন।

খুচরা বিক্রেতারা নতুন দামের খবর পেয়ে পুরোনো তেলও বাড়তি দামে বিক্রি শুরু করেছেন। এত দিন তাঁরা বোতলের গায়ে লেখা সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য থেকে ক্রেতাদের ছাড় দিতেন। এখন দাম বেড়েছে।

রাজধানীর খিলগাঁও রেলগেট ও মালিবাগ রেলগেট বাজারে গতকাল বৃহস্পতিবার পাঁচ লিটারের এক বোতল সয়াবিন তেল কোম্পানিভেদে ৪৭০ থেকে ৫১৫ টাকায় বিক্রি হয়, যা এক সপ্তাহ আগের চেয়ে ৫ থেকে ১০ টাকা বেশি। প্রতি লিটার খোলা পাম তেল বিক্রি হয়েছে ৮০ থেকে ৮৫ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ৭৫ টাকা।

খিলগাঁও রেলগেটের মনির স্টোরের মালিক মো. মনির হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, গত এক মাসে দুই দফায় তেলের দাম বেড়েছে।

বাজারে সবজির দাম কমেনি। মালিবাগ বাজারে বেশির ভাগ সবজি ৫০ থেকে ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করতে দেখা যায়। কাঁচা মরিচের কেজি ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা।

সরকার চালের দাম নির্ধারণ করে দিলেও খুচরা বাজারে তার কোনো প্রভাব নেই। পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমেছে। দেশি পেঁয়াজ গতকাল ৮০ থেকে ৯০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়, যা আগের সপ্তাহের চেয়ে ১০ টাকা কম। অবশ্য ঈদুল আজহার আগেও পেঁয়াজের কেজি ৫০ টাকার নিচে ছিল।

Sharing is caring!