নিজস্ব প্রতিনিধি->>

ফেনী থেকে ব্যবসা গুটিয়ে নিয়েছে এনা পরিবহন। ঢাকা-ফেনী রুটে বাস চলাচল বন্ধ করেছে পরিবহণ জগৎতের বৃহদ প্রতিষ্ঠানটি। সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর নয়াপল্টনের কার্যালয়ে স্টারলাইন পরিবহনের পরিচালক ছায়দুল হক মিন্টুর হাতে চুক্তিপত্র তুলে দেন এনার চেয়ারম্যান খোন্দকার এনায়েত উল্লাহ। এর আগে সোমবার বেলা ১১টার পর এ রুটে এনা পরিবহন চলাচল করেনি। ফেনীতে এনার নিজস্ব টার্মিনাল ও ২৮টি কিনে নিয়েছে ফেনীর প্রভাবাশালী পরিবহন স্টার লাইন গ্রুপ।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ২০১৭ সালের শুরুতে ঢাকা-ফেনী-ছাগলনাইয়া রুটে চালু হয় এনা পরিবহন। ফেনী শহরের মহিপাল, শহীদ শহীদুল্লা কায়সার সড়কে দুটি, সদর হাসপাতাল মোড়ে ও ছাগলনাইয়ায় নিজস্ব টার্মিনালে কাউন্টার খোলা হয়। একইভাবে মহাসড়কের ফেনী ও কুমিল্লা অংশের বেশ কয়েকটি স্থানে কাউন্টার খোলা হয়। শুরুতে স্টাল লাইন পরিবহনের সাথে এনা পরিবহনের মধ্যে বেশ প্রতিযোগিতা লক্ষ্য করা গেলেও করোনা মহামারির কারনে দীর্ঘদিন বাস চলাচল বন্ধ থাকায় ক্ষতির মুখে পড়ে এনা পরিবহন। প্রতি মাসে গড়ে ১৫ থেকে ১৬ লাখ টাকা ক্ষতি গুণছিলো প্রতিষ্ঠানটি।

এনা পরিবহনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এনায়েত উল্যাহ খোন্দকার গণমাধ্যমকে জানান, ঢাকা-ফেনী রুটে ক্রমাগত লোকসানের মুখে তারা এনা পরিবহন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন।একই সাথে এ রুটে চলাচলকৃত ২৮টি বাস সোমবার স্টার লাইন পরিবহনকে বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে।

স্টারলাইন গ্রুপের পরিচালক মাইন উদ্দিন বলেন, অব্যাহত লোকশানের কারণে এনা তাদের বাসগুলো বিক্রি করতে চাইলে আমরা সম্মত হই।এনা তাদের সবগুলো বাস ইতোমধ্যে আমাদের বুঝিয়ে দিয়েছে। বাসের পাশাপাশি এনার নিজস্ব টার্মিনালও কিনে নেয় স্টারলাইন।

প্রসঙ্গত: ১৯৯৮ সালে ফেনী-ঢাকা রুটে স্টার লাইন পরিবহন যাত্রা শুরু হয়। পরবর্তীতে এস আলম, সী লাইন, প্রাইম সহ বিভিন্ন পরিবহনের বাস ঢাকা-ফেনী রুটে চালু হলেও লোকসানের কারনে ফেনী থেকে তাদের ব্যবসা গুটিয়ে নেয়। সেসময়ও স্টারলাইন ওইসব পরিবহনের গাড়িগুলো কিনে নেয়।

Sharing is caring!