সদর প্রতিনিধি->>
ফেনীর লালপুল ও বিসিকে অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছে ভ্রাম্যমান আদালত ও বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড। মঙ্গলবার ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও ফেনী সদর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মৌমিতা দাশ অভিযান চালিয়ে ১০টি অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্নকরণসহ ৪ গ্রাহকের ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা অর্থদন্ড আদায় করেছে।
আদালত সূত্র জানায়, ফেনীর লালপুলের পশ্চিম সিলোনিয়া এলাকায় অবৈধ গ্যাস সংযোগ ব্যবহারের দায়ে বাংলাদেশ গ্যাস আইন ২০১০ অনুসারে ৩ গ্রাহকের ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করে। এর মধ্যে ওই এলাকার স্থানীয় একটি মাদরাসায় প্রবেশের পর দেখা যায়, সেখানে ১০টি চুলা জ্বলছে। মাদরাসা কর্তৃপক্ষ অবৈধ সংযোগের বিষয়টি ভ্রাম্যমান আদালতের কাছে স্বীকার করে। একপর্যায়ে মাদরাসার ভবন মালিকের স্ত্রী সাজেদা আক্তার থেকে ১ লাখ টাকা অর্থদন্ড আদায় করা হয়। একই সাথে উল্লেখিত সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। অবৈধ গ্যাস সংযোগ পাওয়ায় একই এলাকার নাজমা আক্তারের ৫০ হাজার ও আকলিমা আক্তারের ৩০ হাজার  অর্থদন্ড আদায় করা হয়। এসময় তাদের নেয়া অবৈধ গ্যাস সংযোগগুলো বিচ্ছিন্ন করা হয়।

পরে ভ্রাম্যমান আদালত ফেনীর বিসিক এলাকায় অভিযান চালায়। অভিযানে হীরা সুইটস এন্ড কনফেকশনারীর কারখানায় নির্ধারিত মাসিক লোড হতে অধিক হারে গ্যাস ব্যবহার করায় একই আইন অনুসারে ওই প্রতিষ্ঠানের ৮০ হাজার টাকা  অর্থদন্ড আদায় করা হয়।

এছাড়া নোংরা অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে খাদ্যসামগ্রী প্রস্তুত করায় বাংলাদেশ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ অনুসারে হীরা সুইটস এন্ড কনফেকশনারীর মালিককে ৬০ হাজার টাকা  অর্থদন্ড করে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক মৌমিতা দাশ।

অভিযানে বাখরাবাদ গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড ফেনী এরিয়া অফিসের ম্যানেজার সাহাবুদ্দিন, সহকারী প্রকৌশলী কামরুল ইসলামসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!