ঢাকা অফিস->>

করোনা মহামারিকালে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে বিসিএস ছাড়া সরকারি চাকরিতে প্রবেশকালে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে চাকরিপ্রার্থীদের সর্বোচ্চ বয়সসীমায় ছাড় দিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের নির্দেশনা দিয়েছে সরকার।

বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এক আদেশে ২৫ মার্চকে ৩০ বছর ধরে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের নির্দেশনা দিয়ে সব মন্ত্রণালয়/বিভাগের সচিব ও সিনিয়র সচিবদের কাছে পাঠিয়েছে।

সরকারের সব মন্ত্রণালয়/বিভাগের অধীন অধিদপ্তর, পরিদপ্তর, সংস্থা এবং সংবিধিবদ্ধ, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিভিন্ন ক্যাটাগরির সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে এ নির্দেশনা দিয়েছে।

চিঠি বলা হয়েছে, বিসিএস ছাড়া সরকারি চাকরিতে সরাসরি নিয়োগের লক্ষ্যে যথাযথ কর্তৃপক্ষ গত ২৫ মার্চের আগের নিয়োগের ছাড়পত্র দেওয়াসহ সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করা সত্ত্বেও কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করতে পারেনি, সেসব দপ্তরের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে ২৫ মার্চ তারিখের প্রার্থীদের সর্বোচ্চ বয়সসীমা নির্ধারণ করে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সংশ্রিষ্ট সব মন্ত্রণালয়/বিভাগকে অনুরোধ জানানো হলো।

গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর ২৬ মার্চ থেকে টানা ৬৬ দিনের সাধারণ সরকারি ছুটি শেষে জনজীবন ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হতে শুরু করে। ওই ছুটিকালীন অফিস-আদালত বন্ধ ছাড়াও চাকরির বিজ্ঞপ্তি এবং নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ ছিল।

চিঠির বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বাংলানিউজকে বলেন, ২৫ মার্চের আগে যেসব নিয়োগের ছাড়পত্র ছিল সেসব নিয়োগের ক্ষেত্রে এ নির্দেশ প্রযোজ্য হবে। ২৫ মার্চের আগের অনুমোদিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিগুলো পরবর্তী যেকোনো মাসে প্রকাশ হোক না কেন, ২৫ মার্চকে সর্বোচ্চ বয়সসীমা অর্থাৎ ৩০ বছর ধরা হবে। এতে চাকরি প্রত্যাশীরা করোনাকালীন নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ থাকার সময়ের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারবেন।

করোনাকালীন ছুটিতে চাকরি প্রত্যাশীদের ক্ষতি পুষিয়ে দিতে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর দাবি জানিয়ে আসছিলেন প্রার্থীরা।

বিজ্ঞপ্তি প্রকাশে চাকরি প্রত্যাশীদের বয়সে ছাড় দেওয়ার এ উদ্যোগের কথা এর আগে বাংলানিউজকে জানিয়েছিলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর ফরহাদ হোসেন বলেছিলেন, ২৬ মার্চের পর যেসব মন্ত্রণালয় বা বিভাগ চাকরির বিজ্ঞাপন দিতে পারেনি তারা ২৫ মার্চকে প্রার্থীর বয়স ৩০ বছর ধরে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে। এতে করে করোনাকালে যাদের বয়স ৩০ বছর পার হয়ে গেছে তারাও আবেদনটা করতে পারবেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছিলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

Sharing is caring!