দাগনভূঁঞা প্রতিনিধি->>

দাগনভূঁঞায় পুলিশের পৃথক অভিযানে তিন নারীসহ ৭ মাদক বিক্রেতাকে আটক করেছে। উদ্ধার করা হয়েছে ইয়াবা ট্যাবলেট। শনিবার বিকেলে উপজেলার জায়লস্কর ইউনিয়নের উত্তর জায়লস্কর গ্রাম থেকে ২৫০ পিস ইয়াবাসহ এক নারীকে থানা পুলিশ ও শুক্রবার বিকেলে উপজেলার পৌর শহরের অভিরামপুর এলাকায় ৩ নারীসহ ছয়জন মাদক বিক্রেতাকে আটক করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ।

দাগনভূঁঞা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আসলাম সিকদার জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার জায়লস্কর ইউনিয়নের উত্তর জায়লস্কর গ্রামে অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় ওই গ্রামের ধোপা বাড়ির নুর মোহাম্মদ বাবুর স্ত্রী এ্যানি আক্তারকে (২২) আটক করে। পরে ঘর তল্লাশি করে ২৫০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ আরো জানায়, এ্যানি দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় মাদক বিক্রী করে আসছিলো। আটক এ্যানির বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের মামলা দায়ের করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক এ এন এম নুরুজ্জামান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার বিকালে দাগনভূঁঞা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের অভিরামপুর এলাকায় দিলারা মঞ্জিলের ৪র্থ তলায় অভিযান চালায় গোয়েন্দা পুলিশ। এসময় ৫১পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ৬ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে পুলিশ। এদের মধ্যে তিনজন নারী মাদক ব্যবসায়ী রয়েছে।

আটককৃতরা হলেন-নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামের কামাল উদ্দিন ভূঁঞা বাড়ীর আব্দুল খালেকের ছেলে আমির হোসেন (২৪) ও তার স্ত্রী শাহীনা আক্তার খাদিজা (২০), একই এলাকার ইশ্বর ঠাকুর বাড়ীর জহর লাল চক্রবর্তীর ছেলে লক্ষন চক্রবর্তী (২৬), ছায়েদুল হক মিয়া বাড়ীর ছায়েদুল হকের ছেলে সাহাব উদ্দিন (২৭), হাতিয়ার ৩নং মান্নান নগর এলাকার ধানসিঁড়ি আশ্রয়ন প্রকল্পের মোঃ নুরুল ইসলামের মেয়ে সুবর্ণা আক্তার স্বপ্না (১৮), বরিশালের কাউনিয়া থানার কাঠের পোল পানির ট্যাংকি সংলগ্ন মনষা বাড়ীর খোকন পন্ডিতের মেয়ে শাহনাজ আক্তার সিমু (২৮)।

পুলিশ আরো জানান, আটককৃতরা পরষ্পর আত্মীয় পরিচয়ে দাগনভূঁঞায় বাসা ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত মাদক বিক্রয় করে আসছে। আটককৃতদের বিরুদ্ধে দাগনভূঞা থানায় মামলা দায়ের করে আসামীদের থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। শনিবার তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

Sharing is caring!