সোনাগাজী প্রতিনিধি->>

সোনাগাজীতে ১৫ বছরের এক কিশোর (ছেলে) ধর্ষণের (বলাৎকার) শিকার হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাহাপুর এলাকায় এঘটনা ঘটে। কিশোরটি পৌর শহরের একটি মাদ্রাসার নবম শ্রেণি ছাত্র। এ ঘটনায় মঙ্গলবার কিশোরের বাবা বাদী হয়ে জসিম উদ্দিন (৩০) নামে এক ব্যক্তিকে আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত জসিম উদ্দিন পলাতক রয়েছেন। তিনি উপজেলার সদর ইউনিয়নের সাহাপুর এলাকার আবদুর রাজ্জাকের ছেলে।

পুলিশ, কিশোরের পরিবার ও স্থানীয়রা জানায়, সোমবার বিকেলে জসিম উদ্দিন খালের পাড়ে গাছের ছায়ায় বসে আড্ডা দেওয়া ও খাল দেখানোর কথা বলে কিশোরটিকে তাঁর নানার বাড়ি থেকে ডেকে সাহাপুর এলাকায় মোস্তাক খালের পাড়ে নিয়ে যায়। দীর্ঘক্ষণ খাল পাড়ে বসে আড্ডা শেষে কিশোরটি বাড়িতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিলে জসিম তাঁকে ভয়ভীতি দেখিয়ে জোরপূর্ব পাশের একটি জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে ঘটনাটি কাউকে না বলতে হুমকি দেয় জসিম উদ্দিন। বিষয়টি জানাজানি হলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেয় জসিম। কিছুক্ষণ পর কিশোরটি বাড়িতে এসে হঠাৎ অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাঁকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়। রাতে কিশোর বিষয়টি তাঁর পরিবারকে জানায়।

মঙ্গলবার ধর্ষনের শিকার ওই কিশোরের অভিভাবকরা বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও সমাজপতিদেরকে জানান। তাঁরা কিশোর পরিবারকে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য থানায় যাওয়ার পরামর্শ দেন।

কিশোরের বাবা জানায়, এ ঘটনায় অভিযুক্ত জসিম উদ্দিনকে আসামী করে মঙ্গলবার থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোনাগাজী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো.হাবিবুর রহমান চৌধুরী বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে ফেনীর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে কিশোরটির শারীরিক পরীক্ষা করানো হয়েছে। পরে কিশোরটি ফেনীর সিনিয়র জুড়িশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে ২২ ধারায় জবানবন্দি প্রদান করে।

সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ সাজেদুল ইসলাম জানান, অভিযুক্ত জসিম উদ্দিনকে গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।

Sharing is caring!