সোনাগাজী প্রতিনিধি->>

সোনাগাজীতে প্রবাসীর স্ত্রীকে (২২) যৌন নিপীড়নের অভিযোগে তারই শ্বশুর বৃদ্ধ মো. ইলিয়াছকে (৭৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অভিযুক্ত ইলিয়াছকে উপজেলার উত্তর চর চান্দিয়া এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি উপজেলার চর চান্দিয়া ইউনিয়নের উত্তর চর চান্দিয়া এলাকার বাসিন্দা।

এর আগে ওই নারী বাদী হয়ে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে শ্বশুর মো. ইলিয়াছকে আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। গত ১ সেপ্টেম্বর দুপুরে উত্তর চর চান্দিয়া এলাকায় রান্না ঘরে ওই নারী শ্বশুরের হাতে যৌন নিপীড়নের শিকার হয়। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর পুলিশ ইলিয়াছকে গ্রেপ্তার করে।

যৌন নিপীড়নের শিকার ওই নারী জানায়, তার স্বামী প্রবাসে থাকেন। তিনি ১০ মাস বয়সী মেয়েকে নিয়ে শ্বশুর-শাশুড়ির সঙ্গে বাড়িতে থাকেন। তার স্বামী প্রবাসে যাওয়ার পর থেকে ইলিয়াছ তাকে বিভিন্নভাবে প্রলোভন দেখিয়ে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে আসছে। তার (শ্বশুর) প্রস্তাবে রাজি না হলে ছেলে কাছে তার (পুত্রবধূ) নামে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে বাড়ি ছাড়া করার হুমকি দেয় শ্বশুর ইলিয়াছ। বিষয়টি তিনি শাশুড়ি ও মুঠোফোনে স্বামীকে জানান। তারা বিষয়টি গোপন রাখার পরার্মশ দেন।

গত শনিবার দুপুরে তাদের ঘরে কেউ না থাকায় গৃহবধূ রান্না করার সময় হঠাৎ করে শ্বশুর ইলিয়াছ রান্না ঘরে গিয়ে তাকে জড়িয়ে ধরে যৌন নিপীড়ন করেন। এসময় তার চিৎকারে বাড়ি লোকজন এগিয়ে আসলে শ্বশুর রান্না ঘর থেকে চলে যায়।

তিনি বলেন, তাৎক্ষণিক তিনি বিষয়টি তার শাশুড়ি, দেবরের স্ত্রী এবং প্রবাসে থাকা স্বামীকে জানান। লোক লজ্জায় আবারো তারা বিষয়টি কাউকে না জানিয়ে তাকে গোপন রাখতে বলেন। কিন্তু ঘটনার দু’দিন পর শ্বশুর-শাশুড়ির ঝগড়াকে কেন্দ্র করে এলাকায় বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় সমাজপতিরা ইলিয়াছকে বিষয়টি সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেন। তাদের কাছে ইলিয়াছ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। পরে সোমবার রাতে স্থানীয়দের সহায়তায় থানায় এসে মামলা করেন।

সোনাগাজী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সাজেদুল ইসলাম জানান, সোমবার রাতেই পুলিশ অভিযুক্ত শ্বশুর ইলিয়াছকে গ্রেপ্তার করে। এসময় জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ঘটনার কথা স্বীকার করেছে। পরদিন মঙ্গলবার বিকালে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

Sharing is caring!