ঢাকা অফিস->>

প্রবীণ রাজনীতিক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক, ডাকসুর সাবেক ভিপি ও সাংবাদিক ড. ফেরদৌস আহমেদ কোরেশী আর নেই (ইন্নালিল্লাহি … রাজিউন)। প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক পার্টির (পিডিপি) চেয়ারম্যান ছিলেন তিনি। সোমবার দুপুরে রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মস্তিস্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে তার মৃত্যু হয়। তার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর। তিনি দুই মেয়ে ও এক ছেলে রেখে গেছেন। মঙ্গলবার সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে জানাজা শেষে ফেনীর দাগনভূঞায় পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হবে।

ষাটের দশকে অবিভক্ত পাকিস্তান ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন তিনি। এরপর ১৯৬১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নির্বাচিত হন। বাষট্টির ছয় দফা আন্দোলন ও ১১ দফাভিত্তিক ছাত্র ও গণআন্দোলন, ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানে ফেরদৌস আহমেদ কোরেশী বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করেন। মুক্তিযুদ্ধে মুক্তাঞ্চল থেকে তার সম্পাদনায় মুক্তিযুদ্ধের মুখপত্র হিসেবে ‘দেশবাংলা’ পত্রিকা বের করা হয়।

১৯৭৮ সালে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি গঠন করলে ওই দলের প্রথম যুগ্ম-মহাসচিব ছিলেন ড. কোরেশী। ২০০৪ সালে তিনি বাংলাদেশের গ্রিন পার্টি গঠন করেন। ১/১১ সেনাসমর্থিত সরকারের সময়ে ২০০৭ সালে তিনি প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দল (পিডিপি) দল গঠন করেন। ২০০৮ সালের ১৩ নভেম্বর নির্বাচন কমিশন থেকে দলের নিবন্ধন পান।আমৃত্যু তিনি ওই দলের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে ছিলেন।

ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার বাসুদেবপুর গ্রামে ১৯৪২ সা‌লের ১৪ জানুয়ারী জন্মগ্রহন করেন ফেরদৌস আহমদ কোরেশী। ১৯৯৬ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি ফেনী-২ আসনে বিএনপির প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন।

Sharing is caring!