সদর প্রতিনিধি->>
করোনার আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন ফেনী সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. ফাহিম হোসেনের মা নাছিমা আক্তার রিয়া (৫৩)। বুধবার দুপুরে রাজধানীর গ্রীণ লাইফ হাসপাতালের আইসিইউতে (ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। নিহত রিয়া সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী বেলায়েত হোসেনের স্ত্রী।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, ডা. ফাহিম হোসেনের মা নাছিমা আক্তার রিয়ায় করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসে গত ২১ জুন। প্রথমে ঢাকার বাসায় আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিলেও শারিরীক অবস্থার অবনতি হওয়ায় গত ২৫ জুন ধানমন্ডির গ্রীণ লাইফ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার দুপুরে মারা যান নাছিমা আক্তার রিয়া। মৃত্যুকালে তিনি দুই ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন।

কালিদহ ইউনিয়নের স্থানীয় ইউপি সদস্য লিটন পাটোয়ারি জানান, ঢাকা থেকে মরদেহ বুধবার সন্ধ্যায় ফেনী উপজেলার কালিদহ ইউনিয়নের ভালুকিয়া এলাকায় ভূঞা বাড়ীতে আনা হয়। পরে বাড়ির প্রাঙ্গনে সীমিত পরিসরে নামাজে জানাযা শেষে মরদেহ বিশেষ ব্যবস্থায় পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। জা

ডা. ফাহিম হোসেনের মা’র মৃত্যুতে ভারপ্রাপ্ত সিভিল সার্জন ডা. এসএসআর মাসুদ রানা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন । তিনি মরহুমার বিদেহী আত্মার মাগফিরাতত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

এর আগে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সুস্থ্য হয়েছিলেন ডা. ফাহিম হোসেন। কোনো উপসর্গ না থাকলেও গত ৩ মে তাঁর নমুনা পরীক্ষা করা হয়। গত ১০ মে প্রাপ্ত ফলাফলে পজিটিভ আসে। করোনাকে জয় করে মে মাসের শেষ সপ্তাহে ডা. ফাহিম হোসেন ফের হাসপাতালে যোগদান করেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জুন রাতে রাজধানীর কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন হাসপাতালে মারা যান ফেনী সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরেক মেডিকেল অফিসার ডা. জুবায়ের ইবনে খায়েরের মা সাদিয়া আঞ্জুম।

ফেনী সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুই চিকিৎসকের মা’র মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাসরীন সুলতানা। বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকের Uno Feni Sadar এর অফিসিয়াল আইডিতে শোক জানিয়ে একটি পোস্ট করেছেন ইউএনও নাসরীন সুলতানা।

Sharing is caring!