শহর প্রতিনিধি->>
ফেনী শহরের বিভিন্ন মসজিদে ঈদ-উল ফিতরের জামাতে সাংসদ নিজাম উদ্দিন হাজারীর সদ্য প্রয়াত মা ও ভাইয়ের জন্য বিশেষ দোয়া মোনাজাত করা হয়েছে। সোমবার সকালে শহরের বিভিন্ন মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। নামাজ শেষে মোনাজাতে ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারীর মা দেল আফরোজ বেগম ও বড় ভাই জসিম উদ্দিন হাজারীর জন্য বিশেষ দোয়া করা হয়।

মসজিদ সূত্র জানায়, বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের প্রাদূর্ভাবের কারনে দেশের মতো ফেনীতেও কোথাও খোলা মাঠে ঈদ জামাত হয়নি। তবে ভোর থেকে শহরের ফেনী বড় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, জহিরিয়া জামে মসজিদ, কোট জামে মসজিদ, তমিজিয়া জামে মসজিদ, আলিয়া মাদরাসা জামে মসজিদ, সার্কিট হাউজ জামে মসজিদ, স্টেশন রোড জামে মসজিদ, নুরীয়া জামে মসজিদ, পাবলিক হেলথ জামে মসজিদ, পাঠান বাড়ি জামে মসজিদ, শান্তি কোম্পানী জামে মসজিদ, লমি হাজারী বাড়ি জামে মসজিদ, রামপুর আহম্মদ আলী জামে মসজিদ, সওদাগর বাড়ি জামে মসজিদ, রামপুর জামে মসজিদ, মমিন-জাহান জামে মসজিদ, মহিপাল চৌধুরী বাড়ি জামে মসজিদ, হাজী নজির আহম্মদ জামে মসজিদসহ ফেনী পৌরসভার ১৮টি ওয়ার্ডের প্রত্যেকটি মসজিদে স্বাস্থ্য বিধি মেনে নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে ঈদ জামাত হয়েছে। জামাত শেষে খুদবা পরবর্তী মোনাজাতে করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির পাশাপাশি ফেনী-২ আসনের সাংসদের সদ্য প্রয়াত মা মরহুমা দেল আফরোজ বেগম ও বড় ভাই মরহুম জসিম উদ্দিন হাজারীর জান্নাত কামনায় বিশেষ দোয়া মুনাজাত করা হয়েছে।

শহরের পাশাপাশি জেলার ৬ উপজেলার কম বেশি সব মসজিদে ঈদের নামাজ শেষে নিজাম উদ্দিন হাজারীর মা দেল আফরোজ ও বড় ভাই জসিম উদ্দিন হাজারীর জন্য বিশেষ দোয়া মুনাজাত করা হয়।

প্রসঙ্গত: গত রোববার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় জসিম উদ্দিন হাজারী (৫৮)। শনিবার রাতে বুকে ব্যথা অনুভব করলে রাত ১১টার দিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সকালে ছেলের মৃত্যুর খবর পেয়ে শোক সইতে না পেরে বেলা ১২টার দিকে রাজধানীর ধানমন্ডির বড় মেয়ের বাসায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন মা দেলআফরোজ বেগম (৮০)।

Sharing is caring!