শহর প্রতিনিধি->>

ফেনীতে কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় একজন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। বুধবার (২৯ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে শহরের পুরাতন পুলিশ কোয়ার্টার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। রাতে গোয়েন্দা পুলিশ সাব্বিরসহ তিনজনকে আটক করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, দীর্ঘদিন ধরে ওই এলাকায় সাইফুল ইসলাম পিটু ও সফিউল্লাহ শুভ বাহিনীর মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে ২৯ সেপ্টেম্বর শুভর রেস্টুরেন্টে ঢুকে তাকেসহ বেশ কয়েকজনকে কুপিয়ে আহত করে পিটুর লোকজন। এ ঘটনায় পিটু ও সাব্বিরসহ কয়েকজনকে আটক করে পুলিশ। সম্প্রতি সাব্বির জামিনে বের হন। পুরোনো ঘটনার জেরে বুধবার সন্ধ্যায় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে শুভবাহিনীর লোকজন সাব্বিরের লোকজনের ওপর হামলা করে।

এসময় পুলিশ কোয়ার্টার এলাকার রফিকুল ইসলামের ছেলে মানিক (১৬) গুলিবিদ্ধ হন। গুরুতর আহত শাহীন একাডেমি এলাকার জাফর উল্লাহর ছেলে মো. সিফাতকে (২৪) ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকিরা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

সাব্বিরের স্ত্রী তাৎক্ষণিক সাংবাদিকদের জানান, জেল থেকে বের হওয়ার পর সাব্বির বাসায় থাকেন না। হামলার ভয়ে আত্মগোপনে ছিলেন। সফিউল্লাহ শুভ ও তার বাহিনী আমার স্বামীকে হত্যা করার জন্য এলাকায় তাণ্ডব চালিয়েছে। আমি এর বিচার চাই।

এ বিষয়ে জানতে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সফি উল্লাহ শুভর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

শহর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন বলে জেনেছি। ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঘটনাস্থল ও আশপাশের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহের কাজ চলছে। ফুটেজ দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশ সূত্র জানায়, পুরাতন পুলিশ কোয়ার্টার এলাকায় সংগর্ষের ঘটনায় পুলিশ সাব্বিরসহ তিনজনকে আটক করেছে। রাতেই তাদের ফেনী মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।