বিশেষ প্রতিবেদক->>

ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী বলেছেন, ফেনীতে বিএনপি-জামায়াত হরতাল-অবরোধের নামে নাশকতা বা বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে ঘর থেকে ধরে এনে ব্যবস্থা নেব।

আজকের পর থেকে ফেনীতে জ্বালাও-পোড়াও করে সাধারণ মানুষকে কষ্ট দিলে বা নাশকতা বা বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে সে যেই হোক, রামপুর হোক কিংবা অন্য জায়গায়, ঘর থেকে ধরে এনে ব্যবস্থা নেব। এতে আমার মৃত্যু হলেও কিছু যায় আসে না।

ফেনী সরকারি কলেজ থেকে দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়, মেডিকেল কলেজ, প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পাওয়া ২০৯ জন কৃতি শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা ও অভিভাবক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে কলেজের বীর মুক্তিযোদ্ধা খাজা আহমেদ অডিটোরিয়ামে আয়োজিত সমাবেশে কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাম্মদ মোক্তার হোসেইনের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন, শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক জয়নাল আবদীন।

নিজাম উদ্দিন হাজারী বলেন, ফেনীর মানুষ যাতে নিরাপদে থাকতে পারে সেটি আমি নিশ্চিত করতে চাই। একদিকে প্রধানমন্ত্রী উন্নয়ন করেন, অন্যদিকে বিএনপি মানুষ হত্যা করে ধ্বংসযজ্ঞ চালায়। আমি তা মেনে নেবো না।

সাংসদ বলেন, আমি সব দলের এমপি, সবার জন্য সমানভাবে কাজ করতে চাই। আমি উন্নয়ন করতে দলের চিন্তা করি না, কোনো রাস্তাঘাট করতে সবার কথা বিবেচনা করে উন্নয়ন করি। এ উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করতে হবে।

সাংসদ নিজাম আরও বলেন, কৃতি শিক্ষার্থীরা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পড়ালেখা করছেন। তারা ফেনীর জন্য গর্বের। সঠিকভাবে পড়ালেখা করে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। এ কলেজের শিক্ষার্থীদের সুবিধার সব ধরনের উন্নয়ন কাজ হয়েছে। কলেজ গেট, শহীদ মিনার, অডিটোরিয়াম সংস্কারসহ ১৫ বিষয়ে অনার্স মাস্টার্স এর ব্যবস্থাও করা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা অতীতে এ কলেজে সুন্দরভাবে পড়ালেখা করতে পারেননি, গত ১৫ বছরে কলেজের যে উন্নয়ন হয়েছে তা ১০০ বছরের ইতিহাসে সর্বোচ্চ। এখানে কোনো রাজনৈতিক হানাহানি নেই, ইভটিজিং নেই। সুন্দরভাবে শিক্ষার্থীরা পড়ালেখা করছেন। একদিনের জন্য ক্যাম্পাস বন্ধ নেই। সন্তানদের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিভাবকদের খেয়াল রাখতে হবে।

সহকারী অধ্যাপক মাহফুজ উদ্দিনের সঞ্চালনায় সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইতিহাস বিভাগের প্রধান প্রফেসর মো. ফজলে এলাহী। এছাড়া আরও বক্তব্য রাখেন অভিভাবক হারুনুর রশিদ চৌধুরী, জান্নাতুল ফেরদৌস পিনু, কৃতি শিক্ষার্থী হবিগঞ্জ শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের ২য় বর্ষের সমছুন নাহার তামান্না এবং পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মিরাজুল ইসলাম।

সমাবেশে কলেজের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রভাষক মঞ্জুরুল হাসান রুমি ও দর্শন বিভাগের প্রভাষক মীর হোসেন মজুমদারের প্রযোজনায় কলেজের অবকাঠামো উন্নয়ন ও শিক্ষা কার্যক্রম নিয়ে ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়।

শেষে কলেজের কমিশনার জয়নাল আবদীন ভবনের নিচতলায় দৃষ্টিনন্দন লাইব্রেরি উদ্বোধন করা হয়।