বিশেষ প্রতিবেদক->>

ফেনী সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদিয়া সুলতানা রাত্রিকে গাড়িচাপা দিয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে।

রাত্রি নিজেই শুক্রবার (১০ নভেম্বর) রাতে তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এক পোস্টে এ অভিযোগ তোলেন।

সেখানে কে বা কারা তাকে হত্যা করতে চেয়েছে তদন্তের স্বার্থে তা লেখেননি বলে জানিয়েছেন।

পোস্টে তিনি উল্লেখ করেন, ‘মিথ্যা অপবাদ দিয়ে, এডিট করা ছবি দিয়ে যখন আমাকে দমানো যায়নি, আমি যখন তাদের অন্যায় আবদারের সঙ্গে আপস করিনি এবং আমি যখন আইনের আশ্রয় নিচ্ছি ঠিক তখনই আমাকে খুনের চেষ্টা করা হয়, রাস্তায় আমাকে গাড়িচাপা দেওয়া হয়।’

‘তদন্তের স্বার্থে আমি এখন বিস্তারিত বলতে পারছি না, তবে খুব শীঘ্রই সবকিছু সামনে আসবে। আমি আসবো, সসম্মানে আসবো ইনশাআল্লাহ।

আমার অপরাধ আমি একটা মেয়ে, আর একটা মেয়েকে জননেতা নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি মহোদয় কেন নেতৃত্বে নিয়ে আসলো। ’

রাত্রি পোস্টে আরও লিখেছেন, ‘আমি এই মাঠ ছেড়ে যাবো না। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত আমি লড়াই করে যাবো সেইসব অপশক্তির বিরুদ্ধে। ইনশাআল্লাহ। ’

জানা গেছে, কলেজ ছাত্রলীগ নেত্রী সাদিয়া সুলতানা রাত্রি গত বুধবার (৮ নভেম্বর) টমটমে করে বাসায় যাচ্ছিলেন। পথে শহীদ শহীদুল্লাহ কায়সার সড়কে পেছন থেকে একটি গাড়ি তার টমটমকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি মারাত্মকভাবে আহত হন। এই সময় পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে নিকটস্থ জেডইউ মডেল হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

তার শারীরিক অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল থাকলেও বিস্তারিত জানা যাবে সিটি স্ক্যান ও এক্সরে প্রতিবেদন পাওয়ার পর।

এই বিষয়ে সাদিয়া সুলতানা রাত্রি জানান, তার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচারের প্রতিকার চেয়ে চট্টগ্রামে সাইবার ট্রাইব্যুনালে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলাটি বর্তমানে সিআইডির তদন্তে রয়েছে। তদন্তে ব্যাঘাত সৃষ্টির জন্য তাকে হত্যার চেষ্টা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ফেনী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুর করিম জাবেদ জানান, কলেজ ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক রাত্রির দুর্ঘটনার সংবাদ আমি পেয়েছি, এর থেকে বেশি কিছু আমি জানি না।

এ বিষয়ে ফেনী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাফুজুর রহমান জানান, বিষয়টি আমি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখেছি। আমাদের কাছে এ বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি, অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।