নিজস্ব প্রতিনিধি->>

ফেনীতে বিএনপি-জামায়াতের আহ্বানে দ্বিতীয় দফা অবরোধের সমর্থনে রাস্তায় পেট্টোল ঢেলে আগুন ও একাধিক বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

রোববার (৫ নভেম্বর) সকাল ৮টার দিকে জেলা বিএনপির আহবায়ক শেখ ফরিদ বাহারের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল শহরের ট্রাংক রোডের দাউদপুর ব্রিজ থেকে শুরু হয়ে সেন্ট্রাল স্কুলের সামনে এসে রামপুরের দিকে গিয়ে শেষ হয়।

বিক্ষোভকারিরীরা শেখ হাসিনা সরকারের পদত্যাগ ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে অবরোধের সমর্থনে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে।

এসময় মিছিলের অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সদস্য সচিব আলাল উদ্দিন আলাল, যুগ্ম আহবায়ক আনোয়ার হোসেন পাটোয়ারী ও জেলা যুবদলের নাছির উদ্দীন খোন্দকার, জেলা ছাত্রদল নেতা সালাউদ্দিন মামুনসহ কৃষকদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নের্তৃবৃন্দ।

এরপর একইদিন বেলা ১১টার দিকে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর অংশে জেলা বিএনপির অপর যুগ্ম আহবায়ক গাজী হাবিব উল্লাহ মানিকের নেতৃত্বে একই দাবিতে আরও একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। ওইসময় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন দাগনভূঞা উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি রাজিব সহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা।

এছাড়া আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগসহ গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার একদফা দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের অপরাংশে বসে অবরোধ করে ফেনী জেলা,পৌর, উপজেলা ও ফেনী সরকারী কলেজ ছাত্রদল নেতৃত্ববৃন্দ।

এদিকে অবরোধের কারণে বেলা সাড়ে ১২টার দিকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর অংশ থেমে থেমে দু একটি মালবাহী পরিবহন চলতে দেখা গেলেও পুরো মহাসড়ক অনেকটা ফাঁকা দেখা গেছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, শহরের মহিপালের বাস কাউন্টারগুলো খোলা থাকলেও যাত্রী না থাকায় কর্মচারীরা অলস সময় পার করছে। ফেনী ছেড়ে যায়নি স্টার লাইন পরিবহণসহ অন্যকোন দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস। তবে জেলা ও উপজেলা শহরগুলোতে স্বল্প পরিসরে অভ্যন্তরীণ থ্রিহুইলারগুলো চলছে।

ফেনী মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ সহিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, অবরোধের নামে যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঠেকাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রস্তুত আছে। সড়ক মহাসড়কে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা তৎপর রয়েছে।