ফুলগাজী প্রতিনিধি->>
ফুলগাজীতে ডিবি পুলিশ ও সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজির সময় পাঁচ প্রতারককে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার দুপুরে উপজেলার বিভিন্ন মাদ্রাসা ও এতিমখানায় গিয়ে সমাজসেবা কর্মকর্তা, ডিবি পুলিশ ও সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদাবাজি করার সময় পাঁচ প্রতারককে আটক করে পুলিশ।
আটককৃতরা হলেন- ডিবি পুলিশ পরিচয়দানকারী মো. বিল্লাল হোসেন (৪০), মো. দগির (৪২), ৭১ বাংলা টিভির সাংবাদিক পরিচয়দানকারী মাকসুদের রহমান (৩৮), সমাজসেবা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা পরিচয়দানকারী মিজানুর রহমান (৪৭) ও তাঁদের বহনকারী সিএনজি চালিত অটোরিকসা চালক মো. জাহিদ (২১)। তাঁদের সবার বাড়ী কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার ফাতেহাবাদ এলাকায়।

পুলিশ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সুত্র জানায়, বুধবার সকালে তাঁরা একটি সিএনজি চালিত অটোরিকসায় করে জিএম হাট ইউনিয়নের বশিকপুর এতিমখানায় যায়। সেখানে তাঁরা এতিমখানার শিক্ষকদের নানা কথার ফাঁদে ফেলে তিন হাজার টাকা আদায় করে। করইয়া কাজী মোমেনা খাতুন এতিমখানা ৫ হাজার টাকা, ফুলগাজী সদর ইউনিয়নের দক্ষিন বরইয়া মারকাযুল উলুম ইসলামিয়া মাদ্রায়া হাজির হয় এবং একই কায়দায় সেখানে ২০ হাজার টাকা দাবি করেন। ওই মাদ্রাসার একজন শিক্ষক বিষয়টি তাৎক্ষনিকভাবে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। এ ভাবে বিষয়টি জানাজানি হলে মাদ্রাসা শিক্ষক ও এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে তাঁদের ঘেরাও করে ফুলগাজী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে খবর দেয়।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাৎক্ষনিকভাবে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিষয়টি ভাল ভাবে জানার চেষ্টা করেন। তিনি (ইউএনও) প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পেরে তাঁদের পাঁচজনকে আটক করে ফুলগাজী থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. হারুন মিয়া জানান, গত কয়েক দিন থেকে একটি প্রতারকচক্র বিভিন্ন মাদ্রাসা ও এতিমখানায় গিয়ে নিজেদেরকে অধিদপ্তরের কর্মকর্তার নাম ভাঙ্গিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল। একাধিক মাদ্রাসায় এ বার্তাটি পৌঁছে দেওয়া হয় এবং এধরনের কেউ মাদ্রাসায় গেলে দ্রুত জানানোর জন্য বলা হয়। সে কারনে বুধবার দুপুরে প্রতারকচক্র বরইয়া মাদ্রাসায় গেলে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেন। এ ভাবে তাঁদের হাতেনাতে আটক করা সম্ভব হয়েছে।
ফুলগাজী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, তিনি ওই পাঁচ ব্যক্তিকে তাঁদের পরিচয় ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখতে চাইলে তাঁরা কিছুই দেখাতে পারেননি এবং তাদের কথাবার্তাও অসংলগ্ন ছিল। পরে তাদেরকে থানায় সোপর্দ করা হয়।
ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ কুতুব উদ্দীন জানান, তাঁদের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগে মামলার প্রস্তুতি চলছে। বৃহস্পতিবার তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হবে।

Sharing is caring!